মুম্বই: মহারাষ্ট্রের ভিওয়ান্দিতে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনায় শোকপ্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মৃতদের পরিবারকে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি আহতদের দ্রুত সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করেন তিনি। পাশাপাশি মোদী জানান, উদ্ধার কাজ চলছে। একই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্থদের সমস্ত সম্ভাব্য সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য , মুম্বইয়ের কাছেই ভিওয়ান্দিতে প্যাটেল কমপাউন্ড এলাকায় ভোর রাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা গিয়েছে। পুরোদমে এখনও চলছে উদ্ধারকাজ।

এই দুর্ঘটনার জেরে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যা। প্রথমে ৫, পরে ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলেও শেষ পর্যন্ত জানা যায় মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের। তবে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন – সীমান্ত উত্তেজনার মাঝেই লাদাখের আকাশে উড়ল রাফায়েল, কড়া নজর চিনের ওপর

প্রাথমিক রিপোর্ট অনুসারে, ভোর রাত সাড়ে ৩ টে নাগাদ ২১ টি ফ্ল্যাটের ওই বিল্ডিংটি ভেঙে পড়ে। এই সময় ফ্ল্যাটের সব বাসিন্দারাই ঘুমিয়ে ছিলেন। ফলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা এখনই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

ন্যাশনাল ডিসাস্টার রেসপন্স ফোর্স খবর শোনা মাত্রই সেখানে ছুটে যায়, তাঁদের সঙ্গে হাত উদ্ধারকাজে হাত লাগায় স্থানীয় মানুষেরাও। ন্যাশনাল ডিসাস্টার রেসপন্স ফোর্সের আশঙ্কা, কমপক্ষে ২০ থেকে ২৫ জন ধ্বংসস্তূপে আটকে থাকতে পারে।

এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ওই ভেঙে পড়া বিল্ডিংটির নাম জিলানি অ্যাপার্টমেন্ট। ১৯৮৪ সালে ওই বিল্ডিংটি বানানো হয়েছিল বলে খবরে জানা গিয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।