নয়াদিল্লি: প্রকাশ্যে এসেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটি ছবি, যেখানে দেখা যাচ্ছে এক মহিলার সামনে ঝুঁকে প্রণাম করছেন মোদী৷ প্রধানমন্ত্রীর অন্যধরণের ছবি ভাইরাল হওয়া কোনও বড় বিষয় নয়, কিন্তু এই ছবি অন্যগুলি থেকে অনেকটাই আলাদা৷

উল্লেখ্য, এই মহিলার ছবি মোদীর সঙ্গেই দেখা গিয়েছে তা নয়, এপিজে আবদুল কালাম থেকে অমিতাভ বচ্চন বড় বড় মহারথিদের সঙ্গে একই ফ্রেমে দেখা গিয়েছে তাকে৷ কিন্তু কে এই মহিলা?

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যাঁকে দেখা গিয়েছে তাঁর নাম দীপিকা মন্ডল৷ আর এই ছবিটি ২০১৫সালের এপ্রিলের৷ একটি অনুষ্ঠানের তোলা হয় এই ছবি৷ দিল্লির একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা দিব্য জ্যোতি কালচারাল অরগানাইজেশন অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার সোসাইটি (DCOSWS)-র চিফ ফাংশনারি অফিসার এই দীপিকা মন্ডল৷ জানা যায়, তিনি ২০০৩ সালে এই পদে রয়েছেন৷

তাঁর ফেসবুক প্রোফাইলে দেখা যায়, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম থেকে শুরু করে অমিতাভ বচ্চন, জয়া বচ্চন, রজনীকান্ত, শাহরুখ খান, বিদ্যা বালান, কমল হাসানের মতো বহু ব্যক্তিত্বের সঙ্গে তাঁর ছবি রয়েছে৷

একটি ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আর্ট অ্যান্ড কালচার, এডুকেশন অ্যান্ড লেটারেসি, ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি, ট্রাইবাল অ্যাফেয়ার্সের মতো বিষয়ে কাজ করে এবং ভোকেশনাল ট্রেনিংও দেয়৷ এই সংস্থা দিল্লি, মহারাষ্ট্র এবং পশ্চিমবঙ্গে কাজ করে বলেও জানা যায়৷ এর প্রধান উদ্দেশ্য ইন্ডিয়ান আর্ট অ্যান্ড কালচারের প্রচার৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.