প্রতীকি চিত্র

সঞ্জয় কর্মকার, বর্ধমানঃ  প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ তথা টেট পরীক্ষার জন্য এ বছরের ফর্ম দেওয়া শুরু হল বর্ধমানের টাউন হল প্রাঙ্গন থেকে। সোমবার থেকে এই ফর্ম দেওয়া শুরু হয়েছে। চলবে আগামী শনিবার পর্যন্ত। বর্ধমান জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান অচিন্ত্য চক্রবর্তী জানিয়েছেন, এবছর বর্ধমান জেলায় প্রায় ৪৫ হাজার ফর্ম দেওয়া হবে। বর্ধমান জেলায় শূন্যপদের সংখ্যা প্রায় ৩ হাজার। যদিও তিনি জানিয়েছেন, কার্যত প্রতিদিনই কোনও না কোনও শিক্ষিক-শিক্ষিকা অবসর গ্রহণ করছেন। ফলে চূড়ান্ত ফলপ্রকাশের সময় এই শূন্যপদের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। উল্লেখ্য, গত বছর গোটা রাজ্যে প্রায় ৩১ লক্ষ কর্মপ্রার্থী পরীক্ষায় বসেছিল। গতবার যাঁরা চাকরি পাননি এবছরও তাঁরা পরীক্ষায় বসবেন। তার সঙ্গে এবছর নতুন পরীক্ষার্থীরাও থাকছেন। ফলে গতবারের তুলনায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা আরও বাড়বে। অচিন্ত্যবাবু জানিয়েছেন, প্রথম দিকে ঠিক ছিল টেট পরীক্ষার ফর্ম বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে দেওয়া হবে। পরে কর্মপ্রার্থীদের কথা চিন্তা করেই বর্ধমানের টাউন হলে ফর্ম দেওয়ার কাজ করা হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন, প্রথম দুদিন ফর্ম তোলার পরিমাণ কম থাকলেও বুধবার প্রায় ৫ হাজার ফর্ম তুলেছেন কর্মপ্রার্থীরা। এজন্য এদিনই কাউন্টারের সংখ্যা বাড়িয়ে ১২ টি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে মহিলাদের জন্য আরও দুটি কাউন্টার বাড়ানো হবে। উল্লেখ্য, গরম এবং বৃষ্টির কথা মাথায় রেখেই প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদ টাউন হল চত্বরে অস্থায়ী ছাউনি এবং পানীয় জলের ব্যবস্থা করেছে। অচিন্ত্যবাবু জানিয়েছেন, কর্মপ্রার্থীদের যাতে কোনও রকম অসুবিধা না হয় সেজন্য টাউনহলেই সবরকমের হেল্প ডেস্ক চালু করা হয়েছে। সবসময় মাইকের মাধ্যমে ঘোষণাও করা হচ্ছে। রাজনৈতিকভাবে কোনও অভিযোগ যাতে না ওঠে সেজন্য সমস্ত শিক্ষক সংগঠনের নেতৃত্বকেই রাখা হয়েছে। তাঁরাও নানাভাবে সাহায্য করছেন। প্রচুর সংখ্যক কর্মপ্রার্থীদের ভিড়ে কোনও আইন শৃঙ্খলার অবনতি না হয় সেজন্য সাদা পোশাকের প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এদিন আর এস পি-র শিক্ষক সংগঠন প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক স্বপন মালিক জানিয়েছেন, ফর্ম বিলি নিয়ে কোনও রকম অভিযোগ নেই। এমনকি রাজনৈতিক কোনও স্বজনপোষণেরও কোনও অভিযোগ নেই। যদিও এদিন এই টাউন হল প্রাঙ্গণেই তৃণমূল শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি ফ্লেক্স টাঙানো হয়েছে। এব্যাপারে অচিন্ত্যবাবু জানিয়েছেন, অনেক সংগঠনই তাদের ব্যানার, ফ্লেক্স টাঙিয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, বর্ধমান শহরের দুটি বাসস্ট্যান্ড এবং ষ্টেশন চত্বরে কর্মপ্রার্থীদের সুবিধার জন্য হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, বুধবার পর্যন্ত রাজ্য থেকে ৩০ হাজার ফর্ম এসে গেছে আরও ১৫ হাজার ফর্ম চাওয়া হয়েছে। তাঁরা আশা করছেন প্রায় ৪৫ হাজার ফর্ম বিলি করা যাবে।