নয়াদিল্লি: প্রাত্যহিক জিনিসপত্রের দাম আচমকাই বেড়ে গিয়েছে। বিশেষত জুন মাস থেকে বিষয়টা চোখে পড়ছে। তবে এখনই স্বস্তি মিলবে না বলে জানিয়ে দিল আরবিআই। আপাতত দাম বাড়তেই থাকবে।

গত তিন মাসে খাদ্যদ্রব্যের দাম বেড়েছে অনেকটাই। মে মাসে যেটা ছিল ২ শতাংশ, জুন মাসে সেটা হয়েছে ২.৪ শতাংশ। মানিটারি ও ক্রেডিট পলিসি স্টেটমেন্টে আরবিআই জানিয়েছে, অসম বর্ষার কারণে খাবারের দাম চড়চড় করে বাড়তেই থাকবে।

আরবিআই জানিয়েছে গত কয়েক মাসে বেড়েছে মাছ, মাংস, সবজি ও খাদ্যশস্যের দাম। সঙ্গে দুধ, মশলার দামও বেড়েছে। তবে ডিমের দাম যেভাবে বেড়েছিল, তা কিছুটা কমেছে এই মুহূর্তে। ফল এবং মিষ্টি জিনিসের দামও কমেছে বলে জানিয়েছে আরবিআই।

এবছর বর্ষা সব জায়গায় সমানভাবে হয়নি। কোথাও বৃষ্টি হয়েছে খুব বেশি, আবার কোথাও একেবারেই হয়নি। তাই চাষের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

এরাজ্যেও বর্ষা আসতে দেরি করে। প্রচুর দেরী করে দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা আসে। ২১ জুন আসে বর্ষা। ২০ থেকে ২৬ জুন এই এক সপ্তাহে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির ঘাটতিও প্রচুর।

তবে আপাতত কয়েকদিন বৃষ্টি বাড়বে, এমনটাই বলা হয়েছিল। পূর্বাভাসের শেষ দিনে পৌঁছে আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দিয়ছে বঙ্গোপসাগরে থেকে বিদায় নিচ্ছে নিম্নচাপ। ক্রমশ তা সরে যাচ্ছে ওডিশার দিকে।

আগামী ছ’ঘন্টার মধ্যেই বঙ্গ ছেড়ে ওডিশার দিকে এগিয়ে যাবে নিম্নচাপ। এমনটাই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে যে নিম্নচাপ স্থায়ী হয়েছিল তা সরে যাচ্ছে উত্তর-পশ্চিমে ওড়িশা উপকূলের দিকে। মূলত ওডিশার বালাসোরের দিকেই সরে যাচ্ছে নিম্নচাপ। সেখানেই আজ বুধবার থেকে বৃষ্টি বাড়বে।