Prestige Induction Cooktop Pic 20.0 With Omega Deluxe Byk Set 3 Pc Set-এর ওপরে অ্যামাজন দিচ্ছে ৩৯% ছাড়। এই ইন্ডাকশন ওভেন অ্যামাজনে মিলছে ৩,৬৪০ টাকায়। গ্রাহকরা ফ্রি ডেলিভারির পাবে এই ইন্ডাকশন ওভেনের ওপরে।

প্রতিটা গৃহস্থ বাড়িতে রান্নাঘরে গ্যাস এবং স্টোভ, ইন্ডাকশন ওভেন প্রধান জিনিস। রান্নাঘরে এগুলি না থাকলে রান্না ঘরের অর্থ যেন একপ্রকার ব্যর্থ হয়। আগের মতো এখন আর কেউ আঁচে কিংবা উনুনে রান্না করে না। সকলেই ইলেকট্রিক সংযোগের ইন্ডাকশন ওভেনে রান্না করে। তার কারন এই ওভেনে রান্না করার ফলে সময় অনেক কম লাগে।

এই ইন্ডাকশন ওভেনের জনপ্রিয়তা মেস কিংবা হোস্টেলেও রয়েছে। বাড়ি থাকে পড়াশোনা বা কাজের তাগিদে বাইরে থাকা মানুষের একপ্রকার খেয়ে বেঁচে থাকার রসদ এই ইন্ডাকশন ওভেন। তার কারণ গ্যাসের বদলে ইলেকট্রিকের সংযোগে চটকরে নানা খাবার করে ফেলতে পারে সকলে। আর অ্যামাজন পরিবার, বাড়ির বাইরে থাকা ছাত্রদের জন্য স্পেসটিজের ইন্ডাকশন ওভেনের ওপর দিচ্ছে বিশেষ ছাড়।

অ্যামাজনে Prestige Induction Cooktop Pic 20.0 With Omega Deluxe Byk Set 3 Pc Set -এর স্টোভের দাম ৩,৬৪০ টাকা। অ্যামাজনের তরফে স্টোভের ওপর দেওয়া হচ্ছে ৩৯% ছাড়। এই অধিক ছাড়ের ফলে গ্রাহক এটি কিনে সাশ্রয় করতে পারবে ২,৩৫৫ টাকা। Prestige Induction Cooktop -এর স্টোভের আসল দাম ৫,৯৯৫ টাকা।

১২ এপ্রিলের মধ্যে গ্রাহকরা অ্যামাজনে Prestige Induction Cooktop Pic 20.0 With Omega Deluxe Byk Set 3 Pc Set অর্ডার দিলে পাবে ফ্রি ডেলিভারির ব্যবস্থা। প্রেওস্টিজের ইন্ডাকশন ওভেনের সঙ্গে মিলছে তিনটি রান্না করার ননস্টিক কড়ায়। এর পাশাপাশি ত্রুটিগত সমস্যা থাকলে গ্রাহক ১০ দিনের মধ্যে তা পরিবর্তনের সুবিধাও পাবে।

প্রেসটিজের ইন্ডাকশনের জন্য অ্যামাজনে ১৭১ টাকা দিয়ে ইএমআই শুরু করতে পারে গ্রাহকরা। অ্যামাজনে গ্রাহকরা ইএমআই এর জন্য ব্যবহার করতে পারবে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক ক্রেডিট কার্ড, অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক ক্রেডিট কার্ড, বড়োদা ব্যাঙ্ক ক্রেডিট কার্ড, এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক ক্রডিট কার্ড, সিটি ব্যাঙ্ক ক্রেডিট কার্ড, কোটাক এসবিআই ও ইয়েস ব্যাঙ্কের ক্রেডিট কার্ড।

অ্যামাজন পে আইসিআইসিআই ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে গ্রাহকরা ২ মাসের ভাগে ইএমআই দিতে পারবে। ৩ মাস এবং ৬ মাসে হিসেবে প্রেসটিজের ইন্ডাকশন ওভেনের জন্য গ্রাহকরা ইএমআই দিতে পারবে ১,২১৩ টাকা এবং ৬০৭ টাকা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.