নয়াদিল্লি: দু’জনেই পিছিয়ে থাকা ‘দলিত’ সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি৷ তাঁরা দু’জনেই সমাজের উচ্চস্তরে বিচরণ করেন৷ এমনই দুই ভিভিআইপি দলিতের নামের আগে জুড়তে চলেছে রাষ্ট্রপতি তকমা৷ সাধারণতন্ত্র ভারতের দ্বিতীয় দলিত হিসেবে রাষ্ট্রপতি হিসেবে রামনাথ কোবিন্দ না মীরা কুমার, কোনজন নির্বাচিত হবেন তার দিকে তাকিয়ে বিশ্ব৷ নিয়মানুসারে রাষ্ট্রপতি হলেন দেশের সেনাবাহিনীর সর্বাধিনায়ক৷

আরও পড়ুন: ‘কাশ্মীর তো হোগা, লেকিন পাকিস্তান নেহি হোগা’

এনডিএ প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দ বনাম ইউপিএ ও বিরোধীদের প্রার্থী মীরা কুমার৷ লড়াই দ্বিমুখী৷ সোমবার ভোট৷ গণনা ২০ জুলাই। দেশের ১৪তম রাষ্ট্রপতি শপথ নেবেন আগামী ২৫ তারিখ৷

নির্বাচনী জটিল অংক যাই থাক, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ঘিরে রাজনৈতিক সমীকরণের বুনন চলছে৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, আগামী লোকসভা নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখেই জল মাপছে দুই শিবির৷ অংকের হিসেবে এগিয়ে এনডিএ প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দ৷

একনজরে নির্বাচন:
সংসদের উভয় কক্ষের (লোকসভা ও রাজ্যসভা) সদস্য ও সবকটি রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধায়করা রাষ্ট্রপতি ভোটে অংশগ্রহণ করেন। তাঁদের দেওয়া ভোটের ভিত্তিতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন৷ রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ইলেক্টোরাল কলেজের মোট মূল্য ১০,৯৮,৯০৩। এর মধ্যে সাংসদদের ভোট মূল্য ৫লক্ষ ৪৯ হাজার ৪০৮ এবং বিধায়কদের ৫ লক্ষ ৪৯ হাজার ৪৯৫।

নির্বাচনে অংশ নেবেন লোকসভার ৫৪৩ জন ও রাজ্যসভার ২৩৩ জন সদস্য৷ ২৯টি রাজ্য ও সবকটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মোট ৪ হাজার ১২০ জন বিধায়ক।

আরও পড়ুন: ‘সোনাগাছি ঘুরে আসুন’, মমতাকে তসলিমা

কার কত ভোট:
সাংসদদের ভোট- লোকসভা ও রাজ্যসভার সদস্য যাঁরা, তাঁদের একেকজনের ভোটের মূল্য ৭০৮। বিধায়কদের ভোট- বিধানসভার সদস্যদের ভোটের মূল্য নির্ধারিত হয় সেই রাজ্যের বিধানসভার মোট আসন ও জনসংখ্যার নিরিখে। এর ভিত্তিতে সবচেয়ে বেশি ভোট মূল্য উত্তরপ্রদেশের৷ সবচেয়ে কম সিকিম ও অরুণাচল প্রদেশের৷

অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান সম্প্রদায় থেকে মনোনীত লোকসভার দুই সদস্য এবং রাজ্যসভার ১২ জন মনোনীত সদস্য রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না।

এগিয়ে-পিছিয়ে কে?
এনডিএ তথা বিজেপির পছন্দের প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দের ৭০ শতাংশ ভোট পাওয়া নিশ্চিত৷ সেক্ষেত্রে তিনিই এগিয়ে৷ এনডিএ-র পক্ষে ভোট ৫,৩৭,৬৮৩। এটি ম্যাজিক ফিগার থেকে প্রায় ১২ হাজার কম।
অন্যদিকে লড়াই চালাচ্ছেন প্রতিদ্বন্দ্বী মীরা কুমার৷ দেশের অ-বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি থেকে তিনিই লিড নেবেন৷ পরাজয় নিশ্চিত তা মীরা কুমার মেনে নিয়েছেন৷

আরও পড়ুন: ইনিই দুনিয়ার সবচেয়ে ধনী মহিলা

নজরে সেই ১২ হাজার !
কোন প্রার্থীর অনুকূলে পড়বে এই ভোট৷ এই দিকেই তাকিয়ে বিশ্লেষকরা৷ এনডিএ এগিয়ে থাকলেও তাদের ঘাটতি ১২ হাজার ভোটের কতটা কোন দিকে পড়ল তার ইঙ্গিত দেবে আগামী লোকসভা নির্বাচনী সমীকরণের৷ ইতিমধ্যেই কিছুটা আঁচ পড়েছে বিহারে৷ ক্ষমতাসীন জেডিইউ জানিয়েছে,এনডিএ প্রার্থীকেই ভোট দেওয়া হবে৷ জোটসঙ্গী আরজেডির ভোট পড়বে ইউপিএ-র দিকে৷ এছাড়া বিজু জনতা দল, তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি, ওয়াই এস আর কংগ্রেস, এআইএডিএমকে সহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের দল ও নির্দলদের ভোট সংখ্যা নিয়েও চলছে জল্পনা৷ সূত্রের খবর, এই ভোট সংখ্যার বেশিরভাগই অনুকূলে এনেছে এনডিএ৷

দলিত বনাম দলিত লড়াই৷ রাজনীতি ও প্রশাসনের উচ্চস্থানে বিচরণ করা দলিতকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে পেতে চলেছে দেশ৷ কে. আর. নারায়ণনের পর সামরিক বাহিনীর সর্বাধিনায়ক হবেন দ্বিতীয় কোনও দলিত রাষ্ট্রপতি৷

আরও পড়ুন: ভারতের নিজস্ব আত্মঘাতী বাহিনী তৈরি করা উচিৎ: প্রাক্তন সেনা প্রধান