নয়াদিল্লি: গোটা দেশে একসময় কেন্দ্র ও রাজ্যস্তরের নির্বাচন করানোর ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাবনাকে সমর্থন করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। বৃহস্পতিবার সংসদের যৌথ অধিবেশনে ‘এক দেশ এক ভোট’ এর পক্ষে সওয়াল করতে দেখা গেল রাষ্ট্রপতিকে৷ তাঁর মতে, সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য এই নীতি নিয়ে ভাবনা চিন্তা করা দরকার সাংসদদের৷

কেন দরকার? তার ব্যাখ্যাও দেন রাষ্ট্রপতি৷ জানান, প্রতি বছর দেশের কোনও না কোনও প্রান্তে ভোট হয়৷ এতে যেমন প্রচুর অর্থ ব্যয় হয় তেমন উন্নয়নমূলক কাজ থমকে যায়৷ যদি কেন্দ্র ও রাজ্যস্তরে একই সময়ে নির্বাচন হয় তাহলে রাজনৈতিক দলগুলি উন্নয়নমূলক কাজে বেশি করে সময় ব্যয় করতে পারবে৷ অর্থেরও সাশ্রয় হবে৷ জাতীয় ইস্যুগুলিকে মাথায় রেখে দেশের জনগণ সরকার নির্বাচিত করে৷ বর্তমান সময়ের দাবি মেনে ‘এক দেশ এক ভোট’ কার্যকর করা গেলে দেশের মানুষই লাভবান হবে৷

যৌথ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের পরই শুরু হয় সংসদের কার্যকলাপ৷ এদিন রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে নারী শক্তি, গরিবি দূরীকরণ, কৃষকদের উন্নতির কথা শুনিয়েছেন৷ গুরুত্ব দিয়েছেন তিন তালাক প্রথা বিলোপের উপর৷ জানান, নারীর সমানাধিকার রক্ষায় তিন তালাক বা নিকাহ হালালার মতো প্রথা বন্ধ হওয়া দরকার৷ উঠে আসে মাসুদ আজহারের প্রসঙ্গ৷ জানান, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে ভারতের পাশে আজ গোটা বিশ্ব৷ মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দেওয়া লড়াইয়ে ভারতের পাশে শক্তিধর দেশগুলির দাঁড়ানোই তার প্রমাণ৷ পুলওয়ামা ও বালাকোট প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সাংবিধানিক প্রধান বলেন, সার্জিক্যাল ও এয়ারস্ট্রাইক করে দেশের সেনা তাদের শক্তির পরিচয় দিয়েছে৷ ভবিষ্যতেও দেশের নিরাপত্তা রক্ষায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

দ্বিতীয় মোদী সরকারের মূল মন্ত্র হল ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ এবং সবকা বিশ্বাস’৷ সেই মন্ত্র শোনা গেল রামনাথ কোবিন্দের গলাতেও৷ জানান, স্বাধীনতার ৭৫তম বছরেই দুনিয়া অন্য ভারতকে দেখবে৷ ভারত এখনই বিশ্বের পঞ্চম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ৷ দেশের জিডিপি’র হার বৃদ্ধি রাখার ক্ষেত্রে আরও অর্থনৈতিক সংস্কারের পথে হাঁটবে সরকার৷ ২০২৪ সালের মধ্যে ভারতের অর্থনীতিকে ৫ ট্রিলিয়ন ডলারে পৌঁছনো সরকারের লক্ষ্য৷

কৃষকদের জন্য অনেক ইতিবাচক কথা শুনিয়েছেন৷ রামনাথ কোবিন্দ বলেন, ২০২২ সালের মধ্যে কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করা হবে৷ সেই মতো উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার৷ ফসল বিমা চালু হয়েছে৷ ফসলের ন্যুনতম সহায়ক মূল্য বাড়ানো হয়েছে৷ গরিব মানুষের জন্য ‘আয়ুষ্মান ভারত’ প্রকল্প চালু হয়েছে। ২৬ লক্ষ মানুষ প্রকল্পে উপকৃত হয়েছেন। গরিব মানুষদের নিজস্ব বাসস্থানের স্বপ্নপূরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ২ কোটিরও বেশি বাড়ি গড়ে তোলা হবে।