ইন্দোর: রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে হারের জন্য কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট অপারেশন বীরেন্দ্র সেহওয়াগের ভুল গেম প্ল্যানকে দুষলেন টিম মালকিন প্রীতি জিন্টা৷ শুধু দোষারোপেই ক্ষান্ত হননি বলিউড কুইন৷ বরং ম্যাচের শেষে বীরুকে উত্তেজিতভাবে দু’কথা শুনিয়ে দেন তিনি৷ ফ্র্যাঞ্চাইজি মালকিনের এমন অপমানজনক ব্যবহারে প্রাথমিকভাবে নিজেকে শান্ত রাখলেও, শোনা যাচ্ছে শেষমেশ ধৈর্য্য হারিয়ে স্বভাবসুলভ আগ্রাসনে পালটা কয়েকটা জবাবও দেন সেহওয়াগ৷ কথাকাটাকাটি পর পরিস্থিতি এমন একটা জায়গায় দাঁড়িয়ে যে, মরশুমের শেষেই দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন ধ্বংসাত্মক ওপেনার৷

গত মঙ্গলবার জয়পুরে রাজস্থান রয়্যালসের ৮ উইকেটে ১৫৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে পঞ্জাব আটকে যায় ৭ উইকেটে ১৪৩ রানে৷ ১৫ রানে ম্যাচ জেতে রাহানের দল৷ ম্যাচে ব্যাটিং অর্ডারে উল্লেখযোগ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালায় পঞ্জাব৷ অধিনায়ক রবিচন্দ্রন অশ্বিন পিঞ্চ হিটার হিসাবে তিন নম্বরে ব্যাট করতে এসে শূন্য রানে আউট হন৷ করুণ নায়ার, মনোজ তিওয়ারির মতো বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান থাকা সত্ত্বেও অশ্বিনের ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন মেনে নিতে পারছেন না প্রীতি জিন্টা৷ তাঁর মতে, বীরুর মস্তিষ্কপ্রসূত এমন উদ্ভট সব সিদ্ধান্ত দলের ছন্দ নষ্ট করেছে রাজস্থানের বিরুদ্ধে৷

ম্যাচের শেষে সেহওয়াগের কাছে এ নিয়ে কৈফিয়ত চান প্রীতি৷ রীতিমতো উদ্ধতভঙ্গিতে কথাবার্তা বলেন বলিউড অভিনেত্রী৷ পরে বীরুকেও উত্তেজিত কথাবার্তা বলতে দেখা যায়৷

যদিও দলের ক্রিকেটীয় বিষয়ে প্রীতির নাক গলানো এই প্রথম নয়৷ এর আগেও সেহওয়াগের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে মতবিরোধ হয়েছে তাঁর৷ তবে এর আগে পরিস্থিতি এতটা চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছয়নি৷ সেহওয়াগ আগেও দলের অন্য মালিকদের কাছে প্রীতিকে নিয়ে অভিযোগ করেছিলেন৷ তার পরেও লাগাম টানা যায়নি তাঁর গতিবিধিতে৷

গোটা ঘটনায় রীতিমতো অপমানিত বোধ করছেন সেহওয়াগ৷ তিনি এতটাই ক্ষুদ্ধ যে পাঁচ বছরের চুক্তি মাঝপথেই ছিন্ন করে কিংস ইলেভেনের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতে পারেন৷ এখন দেখার যে জল কতদূর গড়ায়৷