অনেকের ধারনা আছে গর্ভবতী অবস্থায় শারীরিক মিলন ঠিক নয়। এতে মা ও বাচ্চার ক্ষতি হয়। কিন্তু আপনি কি জানেন, গর্ভবতী থাকার সময় যৌন মিলন মা এবং তার বাচ্চার কোনও রকম ক্ষতি করে না। বরং এই সময় শারীরিক মিলন ঘটলে শরীর অনেকরকম ভাবে উপকৃত হয়। তার কিছু সন্ধান দিলাম আমরা।

শরীরে রক্ত প্রবাহর উন্নতি ঘটায়:
গর্ভবতি থাকার সময় শরীরে মা এবং শিশুর উভয়েরই চাহিদা মেটাবার জন্য রক্ত প্রবাহ দ্বীগুন মাত্রায় বাড়ে যায়। এই পদ্ধতিতে যদি কোনও ব্যঘাত ঘটে তাহলে শরীরের অনেক ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু এই রক্ত প্রবাহ সচল রাখতে যৌন মিলন খুব গুরুত্বপূর্ণ এখটি ভূমিকা রাখে। কারণ শারীরিক মিলন এই সময় শরীরে হরমোন এবং রক্তের প্রবাহ নমনীয় করে তার উন্নতি ঘটায়। ফলে বাচ্চাকে পর্যাপ্ত পরিমান অক্সিজেন ও পুষ্টি যোগিয়ে তাকে বেড়ে উঠতে সাহাজ্য করে।

কোমড়ের মাংস পেশিকে শক্তি যোগায়:
গর্ভবতি থাকার সময় যদি রোজ শারীরিক মিলন ঘটে তাহলে কোমোড়ের মাংস পেশিকে শক্তি যোগায়। এই সময় ডাক্তাররা ব্যায়াম করার পরামর্শ দেন। যৌন মিলন এমন একটি ভাল ব্যায়াম যা হাড় এবং মাংস পেশিকে মজবুত করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:
গর্ভবতি থাকার সময় শরীর রোগব্যধি আক্রমন হওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। তাই পুষ্টিকর খাওয়া দাওয়া করার পাশাপাশি যৌন মিলন শরীরে রোগব্যধি প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বাড়ায়। করণ শারীরিক মিলন রক্তে এলজিএ অ্যান্টিবডিজ এর পরিমান বৃদ্ধি করে শরীরকে সুরক্ষিত রাখে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।

Comments are closed.