কলকাতা: লক্ষ্য ২০২১। তার আগে ২০২০-এর পুরসভা ভোটকে সেমিফাইনাল বলেই ধরে নিয়েছে রাজনৈতিক মহল। এবার তাই সেমিফাইনালের এই লড়াইয়ের আগে তৃণমূলের কাউন্সিলরদের আগেভাগে সতর্ক করে দিলেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর।

২০১৮-এর পঞ্চায়েত ভোট ঘিরে নানা বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। ৩৪ শতাংশ আসনে বিরোধীরা মনোনয়নই জমা দিতে পারেননি। বিরোধীদের অভিযোগ রাজ্যজুড়ে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করেছিল শাসকদল তৃণমূল। দিকে দিকে বিরোধী প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দিতে বাধা দেওয়া হয়েছিল। তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত জল গড়িয়েছিল। তৃণমূলের সমালোচনায় সরব হয়েছিলেন শাসক-বিরোধী সব দল। সমালোচনার ঝড় ওঠে সমাজের বিভিন্ন মহলেও।

ভোটকুশলী পিকে-র ক্লাসে ঘুম ছুটেছে তৃণমূল কাউন্সিলরদের একাংশের। চলতি বছরে রাজ্যে পুরসভা ভোট। ইতিমধ্যেই ভোট প্রস্তুতি কোমর বেঁধে নেমেছে শাসক-বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। প্রস্তুতিতে খামতি নেই শাসকদল তৃণমূলেরও। ‘ভোটগুরু’ পিকে-ও তৃণমূলকে সাফল্য এনে দিতে চেষ্টার কসুর করছেন না। দফায়-দফায় বৈঠক করছেন দলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে। পরামর্শ দিচ্ছেন তৃণমূলের নীচুতলার নেতাদেরও। ২০২০-এর পুরভোটে বিরোধীদের টেক্কা দিতে নতুন-নতুন সব পন্থা বাতলে দিচ্ছেন তৃণমূলকে। প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শকে মেনে চলছে তৃণমূলও। এবার তাই পুরভোটের আগে বেশ সতর্ক শাসক শিবির।

পুরভোটের আগে হাতে মাত্র কয়েক মাস সময়। চলতি বছরের এপ্রিল ও মে মাস জুড়ে রাজ্যের বিভিন্ন পুরসভায় নির্বাচন। সেই নির্বাচনকে ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে সেমিফাইনালের লড়াই বলে ধরে নিচ্ছেন রাজনীতিবিদরা। ২০২১-এর বিধানসভা ভোটের কোন দলের কতটা প্রস্তুতি রয়েছে তা বোঝা যাবে এই লড়াই থেকেই।

২০২১-এর বিধানসভা ভোট কেন্দ্রীয় বাহিনীর তত্ত্বাবধানে হবে বলে দাবি বিজেপির। তবে আসন্ন পুরভোট হবে রাজ্য পুলিশ দিয়েই। বিজেপির অভিযোগ পুরভোটেও পুলিশ দিয়ে সাফল্য পাওয়ার চেষ্টা করবে শাসকদল তৃণমূল। ২০১৮-এর পঞ্চায়েত ভোটের মতোই এবার পুরভোটেও তৃণমূল সন্ত্রাসের বাতাবরণ তৈরির চেষ্টা করবে বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের।

২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। বিরোধীদের মনোনয়ন জমা দিতে বাধা দেওযার অভিযোগ ওঠে শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলে একের পর এক বিরোধী নেতারা সমালোচনায় সরব হতে থাকেন।

তৃণমূলকে লক্ষ্য করে টিপ্পনি কাটতে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন মহল। এবার তাই আগেভাগে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে চাইছেন প্রশান্ত কিশোর। কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকে এপ্রসঙ্গে সতর্ক করেছেন নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট। বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোনওভাবেই হিংসার আশ্রয় নেওয়া যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছেন কাউন্সিলরদের।