খড়্গপুর: খড়্গপুরে দলীয় প্রার্থীর প্রচারে এসে বিস্ফোরক দাবি করলেন মুকুল রায়। রবিবার সন্ধ্যায় বিজেপি প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা-এর নির্বাচনী প্রচারে এসে বিজেপির চাণক্য বলেন, মমতা এখন আর তৃণমূলের সভানেত্রী নেই, এখন তৃণমূলের সভাপতি পদে বসেছেন অন্যজন। খুব স্বাভাবিক ভাবেই মুকুল রায়ের এহেন মন্তব্য ঘিরে জল্পনা ছড়ায়।

তবে পরে বোঝা যায় আসল গল্প। আসলে খড়্গপুর উপনির্বাচনে তৃণমূলকে ধরাশয়ী করতে নতুন ভাবে আক্রমণের রাস্তায় হেঁটেছেন মুকুল। তিনি বলেন, তৃণমূলের সভাপতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর নেই আর তাঁর বদলে তৃণমূলের সভাপতি প্রশান্ত কিশোর। মুকুলের দাবি, সেই কারণে তৃণমূল বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিরোধীদের কোনও লড়াই নেই। লড়াই টিম পিকে-র সঙ্গে।

আরও পড়ুন – ভারতের অর্থনীতি প্রবল সম্ভাবনাময়, মোদীর প্রশংসায় বিল গেটস

তবে আক্রমণের মাত্রা বাড়িয়ে চাণক্য এদিন বলেন, তৃণমূল এখন আর মমতার দল নেই। তৃণমূল হচ্ছে এখন মমতার অভিষেকের কোম্পানি। ওটা দল নেই। পাশাপাশি বিজেপির জয় যে নিশ্চিত সেকথাও জানান তিনি। সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীকেও ছেড়ে কথা বলেননি একসময়কার তৃণমূলের কাণ্ডারি নেতা। তিনি বলেন, “শুভেন্দু অধিকারীর ট্র্যাক রেকর্ড খুব খারাপ। তিনি যেখানে যেখানে দায়িত্বে ছিলেন, সেখানে সেখানেই তাঁর দলের প্রার্থী পরাজিত হয়েছেন।”

রবিবার সন্ধ্যায় দলীয় প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা-এর নির্বাচনী প্রচারে উপস্থিত হয়েছিলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। প্রেমচাঁদকে সঙ্গে নিয়ে প্রায় চার কিমি রাস্তায় প্রচার সারেন তিনি।