পাটনা: অবশেষে বিচ্ছেদ৷ দল থেকে প্রশান্ত কিশোরকে তাড়িয়ে দিলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার৷ ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট কৌশলে রপ্ত৷ তবে তাঁকে জেডিইউ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণ, নীতীশ কুমারের সঙ্গে ক্রমাগত দূরত্ব৷

জেডিইউ থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পরেই টুইট করেন প্রশান্ত কিশোর৷ বিহারের মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি লিখেছেন ‘ধন্যবাদ নীতীশ কুমার। বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সি ধরে রাখার জন্য আমার তরফ থেকে অনেক শুভেচ্ছা। ভগবান আপনার মঙ্গল করুক’।

বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রশান্ত কিশোরের দূরত্ব নিয়ে তৈরি হয়েছিল জল্পনা৷ কারণ সিএএ এবং এনআরসি ইস্যুতে জনতা দল ইউনাইটেড দলের অবস্থানের বাইরে গিয়ে সোচ্চার হতে দেখা গিয়েছে প্রশান্ত কিশোরকে। সংসদে সিএএ সমর্থন করায় নিজের দল জেডিইউ-র সমালোচনায় সরব হন পিকে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রবল বিরোধী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীর ভোট কুশলী হিসেবেও কাজ করছেন প্রশান্ত কিশোর৷ তিনিই আবার সিএএ ইস্যুতে মমতার মতকেই জোরালো সমর্থন করেছেন প্রশান্ত কিশোর৷