নয়াদিল্লি: অবশেষে সব জল্পনার অবসান৷ ১৩ জুন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর ডাকা ইফতার পার্টিতে যোগ দিচ্ছেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ সোমবার রাতেই এই বিতর্কের অবসান ঘটায় কংগ্রেস৷

দলের পক্ষ থেকে পরিস্কার জানিয়ে দেওয়া হয়, আগামী 1১৩ জুন রাহুল গান্ধীর ইফতার পার্টিতে দেখা যেতে চলেছে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিকে৷ যে জল্পনাকে হাতিয়ার করতে চলেছিল বিজেপি শিবির, আপাতত সেই জল্পনায় জল ঢেলে কংগ্রেসের বিবৃতি আমন্ত্রণ পত্র পাঠানো হয়েছে প্রণব মুখোপাধ্যায়কে৷ সেই পত্র গ্রহণও করেছেন তিনি৷

এই বিষয়ে একটি ট্যুইট করেন কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা৷ তিনি বলেন মিডিয়ায় এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছিল যে আরএসএসের জনসভায় উপস্থিত থাকার জন্য প্রণব মুখোপাধ্যায়কে আদৌ ইফতার পার্টিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কি না৷ তার একটাই জবাব, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী প্রণব মুখোপাধ্যায়কে ইফতার পার্টিতে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ পত্র পাঠান এবং প্রণববাবু সেটি গ্রহণ করেন। আশা করি, এর ফলে অযাচিত সব বিতর্কের অবসান হবে৷

তিনি নিজের ট্যুইটে এটাও লেখেন যে প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতির দেওয়া শেষ ইফতার পার্টিতেও উপস্থিত ছিলেন প্রণব বাবু৷ তাই তাঁকে বাদ দিয়ে এবারের ইফতার পার্টি হবে না৷ মিডিয়ার কাছে রণদীপ সুরজেওয়ালা অনুরোধ জানিয়েছেন অযৌক্তিক বিতর্ক তুলে যাতে সমস্যা বাড়ানো না হয়৷ পবিত্র রমজান মাসে বন্ধুত্ব ও সমবেদনার সংস্কৃতিকে ছড়িয়ে দেওয়াই কংগ্রেসের উদ্দ্যেশ্য৷

রাহুল গান্ধীর এই ইফতার পার্টিতে উপস্থিত থাকবেন বিরোধী দলের নেতারা৷ মুলায়ম সিং যাদব, শরদ যাদব, শরদ পাওয়ার, সীতারাম ইয়েচুরি, তেজস্বী যাদব উপস্থিত থাকবেন এই পার্টিতে৷ আমন্ত্রণ জানানো হবে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইড়ুকেও৷

রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে ইফতারের অনুষ্ঠান না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ জানান, করদাতাদের খরচে কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠান রাষ্ট্রপতি ভবনে করা হবে না৷ এরপরেই কংগ্রেস ইফতার দেবে বলে ঘোষণা করে৷

এই পার্টিটি আয়োজিত হবে তাজ প্যালেস হোটেলে। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে শেষ ইফতারের আয়োজন করা হয়েছিল প্রাক্তন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর আমলে, ২০১৫ সালে।

প্রায় দুবছর পর কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ইফতার পার্টি দেওয়া হচ্ছে৷ তবে রাহুল গান্ধী দায়িত্ব নেওয়ার পর এটিই তাঁর দেওয়া প্রথম ইফতার। এই ইফতার পার্টিকে কেন্দ্র করে তৃতীয় ফ্রন্টের মঞ্চ আবার মজবুত করে গড়ে তুলতে চাইছেন কংগ্রেস সভাপতি৷