নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। সোমবার দুপুরে নিজেই ট্যুইট করে সেকথা জানিয়েছেন তিনি।

এদিন তিনি ট্যুইটারে লিখেছেন, “হাসপাতালে সম্পূর্ণ অন্যকাজে গিয়ে আজ জানতে পেরেছি আমি কোভিড পজিটিভ”। এছাড়াও তিনি  #CitizenMukherjee দিয়ে লিখেছেন, “আমি সকলের কাছে অনুরোধ করছি গতসপ্তাহে যারা আমার সংস্পর্শে এসেছেন তাঁরা নিজেদের আইসোলেশনে রাখুন এবং অবশ্যই কোভিড-১৯ পরীক্ষা করান”।

সাম্প্রতিক সময়ে একাধিক রাজনৈতিক নেতা নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সেই তালিকায় রয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, অর্জুন রাম মেঘওয়াল, বিভাস সারাংঙ্গ, শিবরাজ সিং চৌহান, ধর্মেন্দ্র প্রধান, বি শ্রীরামুলু, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পা, কৃষিমন্ত্রী বিসি পটেল এবং কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া এবং কারতি চিদাম্বরম।

জুলাই মাসের ২৫ তারিখ শিবরাজ সিং চৌহান করোনা পজিটিভ হয়েছিলেন। মোট ১১ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। অগাস্টের ৫ তারিখ তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

আরও পরুন :  মহারাষ্ট্রকেও ছাড়িয়ে যাবে রাজ্যের আক্রান্তের সংখ্যা, বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

ইতিমধ্যেই দেশে করোনা সংক্রমণ দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে। শেষ ২৪ ঘন্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬২ হাজার ৬৪ জন। পাশাপাশি মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৭ জনের।
নতুন করে সংক্রমণের জেরে দেশে মোট আক্রা

ন্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ লক্ষ ১৫ হাজার ৭৫ জন। এরমধ্যে অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৬ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৪৫ টি। করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হওয়া মানুষের সংখ্যা বর্তমানে ১৫ লক্ষ ৩৫ হাজারের বেশি। দেশজুড়ে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৪৪ হাজার ৩৮৬ জনের।

আরও পরুন : BREAKING: ২৪ ঘন্টায় মৃত হাজারের বেশি, দেশে মোট আক্রান্ত ছাড়াল ২২ লক্ষ

দৈনন্দিন করোনা টেস্টের হারে খুব শীঘ্রই নয়া মাইলফলক তৈরী করতে চলেছে আমাদের দেশ ভারত। কোনও ব্যক্তি করোনা সংক্রামিত কিনা তা জানতে ব্যাপক হারে চলছে করোনা টেস্ট। প্রতি মিনিটে পাঁচশো টেস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

তবে এবার সম্ভবত কমতে চলেছে করোনার প্রকোপ। মনে হচ্ছে আসল সুখবর আসতে চলেছে। রিপোর্ট অনুযায়ী ৪০ শতাংশ করোনা আক্রান্তদের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে কোনও উপসর্গ নেই, অর্থাৎ তাঁরা অ্যাসিম্পট্যোম্যাটিক।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই রকম উপসর্গহীন করোনাই ধীরে ধীরে ছড়াবে। যার ফলে একসময় করোনার বিশেষ কোনও উপসর্গ আর থাকবে না। এতেই করোনার প্রকোপ কমার দিকে যাবে বলে আশা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সপ্তাহ খানেক আগেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অমিত শাহ। তিনি ট্যুইট করে লিখেছিলেন, ‘গত কয়েকদিনে যাঁরা আমার সংস্পর্শে এসেছেন তাঁরা দ্রুত নিজেদের আইসোলেট করুন নিজেদের।

বিভিন্ন ভার্চুয়াল জনসভাতে বক্তব্য রেখেছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। সেই মঞ্চেই উপস্থিত ছিলেন অন্যান্য নেতারা। দিল্লির করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা নেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সম্প্রতি দিল্লি সরকারের বিভিন্ন আধিকারিকের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা