নয়াদিল্লি: রাজধানীর ভোটে দলের ভরাডুবিতে ঘুরিয়ে কংগ্রেসকেই দায়ী করলেন বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। এক সময় কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিল বিজেপি। সেই বার্তাই এবার দিল্লি জয়ের পদ্ম শিবিরের পথে বড় কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্ক তলানিতে নেমে যাওয়াতেই দিল্লির বিধানসভা ভোটে বিজেপির শোচনীয় ফল হয়েছে বলে মনে করছেন দলেরই একাংশের নেতারা। প্রকাশ্যেই সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির অন্যতম শীর্ষ নেতা প্রকাশ জাভড়েকর।

সদ্যসমাপ্ত দিল্লির ভোটে ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির। মাত্র ৮টি আসনে জয় পেয়ে কোনওমতে দিল্লিতে অস্তিত্ত্ব টিকিয়ে রাখতে পেরেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির এই ব্যর্থতায় কংগ্রেসের ভোটব্যাঙ্ক কমে যাওয়াকেই দায়ী করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। তাঁর কথায়, ‘দিল্লির রাজনীতি থেকে কংগ্রেস আচমকাই উধাও হয়ে গিয়েছে। এটাই দিল্লির বিধানসভায় বিজেপির হারের অন্যতম কারণ।’

দিল্লিতে দলের শোচনীয় ফল প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে জাভড়েকর আরও বলেন, ‘কংগ্রেসের দুর্বলতাই দিল্লিতে বিজেপির হারের অন্যতম কারণ। কংগ্রেসের ভোট পেয়েছে আম আদমি পার্টি।’ দিল্লি বিধানসভা ভোটে মোট ৭০টি আসনের ৬২টিতেই জয়ী হয়েছেন আম আদমি পার্টির প্রার্থীরা। মাত্র ৮টি আসনে জয় পেয়েছেন বিজেপি প্রার্থীরা।

উলটোদিকে, দিল্লির ভোটের ফলপ্রকাশের পর দূরবীণ দিয়েও দেখা মিলছে না কংগ্রেসের। এমনকী দলের হারের দায় নিয়ে ইতিমধ্যেই পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে এবার কংগ্রেস মাত্র ৪ শতাংশ ভোট পেয়েছে। দিল্লির ৬৩ আসনেই জামানত জব্দ হয়েছে কংগ্রেস প্রার্থীদের।

রাজনৈতিক মহলের ব্যখ্যা, এবারের দিল্লির ভোটে কংগ্রেস ময়দানে না থাকায় বিজেপির সঙ্গে আপের সরাসরি লড়াই হয়েছে। দিল্লিবাসীর ভোট আপ ও বিজেপির ঝুলিতেই গিয়েছে। ভোট প্রচারেও এবার তেমনভাবে দাগ কাটতে পারেনি কংগ্রেস। নির্দিষ্ট কোনও ইস্যু না থাকায় ভোটের প্রচারেও বাকিদের থেকে অনেকটাই পিছিয়ে ছিল হাত-শিবির।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও