নয়াদিল্লি: বিজেপির বিতর্কিত নেত্রী তথা সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা সিংকে গুরুত্বপূর্ণ পদে মনোনীত করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সংসদের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের পরামর্শদাতার কমিটিতে তার নাম মনোনীত করেছে বিজেপি। সংসদের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এই ২১ জনের কমিটির শীর্ষে রয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এই কমিটিতে রয়েছেন বিরোধী শিবিরের ফারুক আবদুল্লাহ এবং শরদ পাওয়ার।

একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করায় খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন গেরুয়া শিবিরের এই নেত্রী। গাঁধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ‘প্রকৃত দেশপ্রেমী’ বলে বিতর্ক বাধিয়েছিলেন আগেই। কিছুদিন আগেই আবারও বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন ভোপালের বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা। সেই বার ‘জাতির জনক’ মহাত্মা গাঁধীকে ‘জাতির সন্তান’ বলে বসেন তিনি।

চলতি বছরে লোকসভা নির্বাচনের সময় গাঁধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ‘প্রকৃত দেশপ্রেমিক’ বলে বিতর্ক বাধিয়েছিলেন সাধ্বী প্রজ্ঞা। তা নিয়ে বিজেপির অন্দরেও সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। চাপে পড়ে যদিও শেষমেশ ক্ষমা চেয়ে নেন তিনি।ওই মন্তব্যের জন্য সাধ্বীকে কখনও ক্ষমা করতে পারবেন না বলে জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে শোকজ নোটিস ধরানো ছাড়া বিজেপির তরফে তাঁর বিরুদ্ধে সে ভাবে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটিতে এই নেত্রীকে মনোনীত করার ক্ষেত্রে সরব হয়েছেন বিরোধীরা। কংগ্রেসের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানানো হয়।

মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস পরিচালিত সরকারের অর্থমন্ত্রী পিসি শর্মা বলেন, ‘প্রতিরক্ষামন্ত্রকের মত গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে যেখানে দেশের নিরাপত্তা জড়িত। এইরকম জায়গায় এই নেত্রীর মনোনয়ন দুর্ভাগ্যজনক।’ বিজেপি শোকজ করলেও কাজের কাজ যে কিছুই হয়নি বিজেপির এই মনোনয়নেই তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।