নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাসের জেরে লকডাউন চলাকালীন দরিদ্রদের কল্যাণ নিশ্চিত করতে মোদী সরকার প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যান যোজনা বা পিএমজিকেপির অধীনে বিভিন্ন কল্যাণমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। এই প্যাকেজের আওতায়, কেন্দ্রীয় সরকার ৫ মে, ২০২০ পর্যন্ত প্রায় ৩৯ কোটি দরিদ্রের জন্য দিয়েছে ৩৪,৮০০ কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা করেছে।

এই ৩৪,৮০০ কোটি টাকার মধ্যে ১০ হাজার ২৫ কোটি টাকা ৯৮.৩৩ শতাংশ মহিলা জন ধন অ্যাকাউন্টধারীদের খাতায় জমা করা হয়েছে। ২০ কোটি ৫ লক্ষ মহিলা এই সুবিধা পেয়েছেন।

৫ মে পর্যন্ত জনধন টাকার দ্বিতীয় কিস্তিতে জন ধন অ্যাকাউন্টধারীদের ৫ কোটি ৫৭ লক্ষ টাকা পাঠানো হয়েছে। ভুললে চলবে না এ হিসেব ৫ মে অবধি।

প্রধানমন্ত্রী কিষাণ যোজনায় ৮ কোটি ১৯ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ১৪০৫ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে প্রায় ২.৮২ কোটি বৃদ্ধা, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের।

এই প্রকল্পের আওতায় মোট ৫.০৯ কোটি মানুষকে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার সুবিধা দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই ৪. ৮২ কোটি উপভোক্তার কাছে ফ্রি সিলিন্ডার পৌঁছে গিয়েছে।

প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশনের গ্রাহকরা ২,৯৮৫ কোটি টাকা অগ্রিম উত্তোলনের সুবিধা নিয়েছেন। প্রায় ৪৪.৯৯ লক্ষ কর্মচারীর অ্যাকাউন্টে ৬৯৮ কোটি টাকা স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয় একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে, “ডিজিটাল পেমেন্ট অবকাঠামো ব্যবহার করে প্রায় ৩৯ কোটি দরিদ্র মানুষ প্রধানমন্ত্রীর কল্যাণ প্যাকেজ (পিএমজিকেপি) এর আওতায় ৫ মে ২০২০ অবধি ৩৪ হাজার ৮০০ কোটি টাকা পেয়েছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।