শ্রীনগর: সকাল সকাল সংসদ ভবন চত্বর ঝাঁট দিতে গিয়ে ট্রোলড হয়েছেন অভিনেত্রী তথা মথুরার বিজেপি সাংসদ হেমা মালিনী। তাঁর বিরুদ্ধে ‘লোক দেখানো সাফাই অভিযান’ চালানোর অভিযোগ তুলেছেন অনেকেই। সেই একই পথে প্রাক্তন জম্মু কাশ্মীর মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা। শনিবার হেমা মালিনীর সংসদ চত্বর সাফাই এর প্রচেষ্টাকে কটাক্ষ করে বলেন, সংসদ দেশের সবচেয়ে পরিস্কার একটি জায়গা।

স্বচ্ছ ভারত অভিযানের এই প্রয়াসে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন, কেন্দ্রীয় অর্থপ্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, হংসরাজ হংস, সুশীল কুমার সিং-সহ একাধিক সাংসদ ঝাড়ুহাতে উপস্থিত ছিলেন।

স্বচ্ছ ভারত অভিযান: ঝাঁটা হাতে সংসদ চত্বর সাফ করলেন হেমা

ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ট্যুইট করে জানান, “সংসদ দেশের সবচেয়ে পরিস্কার জায়গার মধ্যে একটি। তাহলে তারা ওইসময় কি পরিস্কার করছিলেন!” আরও একটি ট্যুইট করে আবদুল্লা জানান, “ম্যাডাম দয়া করে ঝাঁটা নিয়ে ছবি তোলার আগে ঝাঁটা কিভাবে ধরে তা শিখে নিন। যে পদ্ধতিতে আপনি কাজটা করছেন তাতে মথুরা বা দেশের অন্য কোথাও স্বচ্ছতা অভিযানে কোনও উন্নতি হবে না।”

‘স্বচ্ছ ভারত অভিযান’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্নের প্রকল্প। এর লক্ষ্য ভারতে স্বাস্থ্যব্যবস্থার স্তরের উন্নতি এবং দেশকে খোলা শৌচমুক্ত করা। ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর এই অভিযান শুরু করে মোদি সরকার।

২০১৯ সালের ২ অক্টোবর দেশের গ্রামীণ অঞ্চলে ৯ কোটি শৌচাগার বানানোর কথা বলা হয় সেই প্রকল্পে। ২০১৮ সালের ২ অক্টোবরের মধ্যে সেই লক্ষ্যমাত্রা প্রায় পূরণ হয়ে গিয়েছে।

এবারের বাজেট ভাষণে নতুন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন এ প্রসঙ্গটি উত্থাপন করে বলেন, ‘‘স্বচ্ছ ভারত অভিযান দেশের চৈতন্য স্পর্শ করতে পেরেছে স্বাস্থ্য ও পরিবেশগত সুবিধাপ্রাপ্তির মাধ্যমে।