জলপাইগুড়ি: দীর্ঘদিন ধরে নেই বিদ্যুৎ পরিষেবা৷ বিদ্যুৎ আসলেও খুব অল্প সময়ের জন্য৷ তারপর আবার বিদ্যুৎসংযোগহীন গোটা এলাকা৷ বারবার বিদ্যুৎদফতরে অভিযোগ জানানো হলেও কাজ হয়নি৷ বাধ্য হয়েই গত সপ্তাহে রাজ্য সড়ক অবরোধে শামিল হয়েছিলেন এলাকার লোকজন৷ তাতেও কাজ হয়নি৷ এবার এলাকার মহিলারা একজোট হয়ে থানায় বিক্ষোভ দেখালেন৷ জলপাইগুড়ি শহর লাগোয়া রাখালদেবী এলাকার ঘটনা৷

বারবার বিদ্যুৎ দফতরের কাছে অভিযোগ করে লাভ হয়নি৷ বাধ্য হয়ে শনিবার বিকেলে হলদিবাড়ি-জলপাইগুড়ি রাজ্য সড়ক অবরোধে সামিল হন জলপাইগুড়ি শহর লাগোয়া রাখালদেবী এলাকার বাসিন্দারা৷ বেশ কিছুক্ষণ রাস্তা অবরোধের পর পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়৷

কিন্তু সে আশ্বাস যে পুরোটাই শুকনো ছিল গত দু’দিনে তা বুঝে যান এলাকার লোকজন৷ দু’দিনে বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক হয়নি এলাকায়৷ সোমবার বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক করতে এলাকায় মহিলারা এক হয়ে থানায় বিক্ষোভ দেখান৷ আইসিকে অভিযোগও জানান৷

আরও পড়ুন: বহুতলের নিচে আগুনে আতঙ্ক ছড়াল হাওড়ায়

আন্দোলনকারী মহিলাদের দাবি, দ্রুত বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক করতে হবে৷ বিদ্যুৎ না থাকায় গরমে এলাকার মানুষের নাজেহাল অবস্থা৷ অসুস্থ মানুষ আরও অসুস্থ হয়ে পড়ছেন৷ আবার বর্ষা ঢুকে গেলেও বিপত্তি৷ রাতের বেলা জলে ডোবা চারদিক থেকে নানা পোকামাকড় বের হচ্ছে৷ বড় বিপদ ঘটে যেতে পারে৷

অভিযোগ, বাড়ির ছেলে মেয়েরা পড়াশোনা করতে পারছে না৷ বিশ্বকাপ চলছে৷ বিশ্বকাপ ফুটবল দেখতে পাচ্ছে না কেউই৷ এলাকায় বিদ্যুৎসংযোগটি পাশের এলাকা পাণ্ডাপাড়ার সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার দাবি তোলেন এলাকাবাসী৷ গত শনিবার বিক্ষোভ কর্মসূচির জেরে রাজ্য সড়কের দু’পাশে প্রচুর গাড়ি আটকে পড়েছিল৷ খবর পেয়ে বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরা এলে তাদের গাড়ি ঘেরাও করেও বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন ক্ষুব্ধ এলাকার লোকজন৷

আরও পড়ুন: দশমের সার্টিফিকেট জালিয়াতিতে অভিযুক্ত বিমল গুরুংয়ের মেয়ে

এদিন সেই ক্ষোভ দ্বিগুন হয়ে ওঠে৷ এদিকে থানায় বিক্ষোভ দেখানোর পর আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকারের নির্দেশে থানার পুলিশ আধিকারিক বিদ্যুৎদফতরে নিয়ে যায় আন্দোলনকারী মহিলাদের৷ এবং বিদ্যুৎদফতর থেকে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন বলে জানা গিয়েছে৷

আন্দোলনকারী স্থানীয় বাসিন্দা বিদিশা সেন জানান, ‘‘আমাদের এলাকায় বিদ্যুৎপরিষেবা স্বাভাবিক করতে হবে৷ ফোনে অভিযোগ করলে বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরা পাল্টা কটাক্ষ করেন৷’’ কোতোয়ালি থানার আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার জানান, ‘‘রাখালদেবী এলাকায় বিদ্যুৎপরিষেবা ব্যহত হচ্ছে৷ লোকজন বিশ্বকাপ দেখতে পাচ্ছেন না বলেও অভিযোগ করেছেন৷ এছাড়া রোজকার নানান সমস্যা তো হচ্ছেই৷ অনেকেই থানায় এসেছিলেন৷ আমরা পুলিশ কর্মী-সহ অভিযোগকারীদের বিদ্যুৎ দফতরে পাঠিয়েছি৷’’