স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: “অন্ধজনে দেহো আলো, মৃতজনে দেহো প্রাণ” কবিগুরুর এই ভাবনার স্বার্থক প্রতিফলন ঘটল সংস্কৃতির শহর বালুরঘাটে। মৃত্যুর পরে অন্যের চোখে আলো ফুটিয়ে যেন এই জগৎটাকে দেখা যায়। জগতের যা কিছু সুন্দর তার সবকিছুকে উপভোগ করা যায়। এই লক্ষ্যেই বালুরঘাটের শিল্পীরা সোমবার মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করলেন।

বালুরঘাট শিল্পী মঞ্চের উদ্যোগে এদিন স্থানীয় নাট্যতীর্থ মঞ্চে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই সংগীত ও নৃতশিল্পী থেকে শুরু করে নাট্য অভিনেতা সকল ক্ষেত্রের শিল্পীরা অংশগ্রহণ করেছিলেন। এদিন মোট চল্লিশ জন শিল্পী তাঁদের মরণোত্তর চক্ষুদান করেছেন। দক্ষিণ দিনাজপুরের পুলিশ সুপার তথা চিত্র পরিচালক লেখক ও অভিনেতা প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়ও এদিন মরণোত্তর চক্ষুদানের বিষয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছেন।

বালুরঘাট শিল্পী মঞ্চের সম্পাদক দেবাশীষ খান জানিয়েছেন, এবারে তাদের সংস্থা ২৫ বছরে পদার্পণ করেছে। এই উপলক্ষ্যে বছরভর নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন তাঁরা। শুধু গান বাজনার মত সাংস্কৃতিক অনুস্থানের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে এদিন চতুর্থ পর্বে মরণোত্তর চক্ষুদানের আয়োজন করেন তাঁরা। যার অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্যই হল অন্ধজনের চোখে আলো ফুটিয়ে মৃত্যুর পরেও নিজেকে জীবিত রাখা। মরনোত্তর চক্ষু দানের এই কাজে সবাই যাতে এগিয়ে আসেন সেই বার্তাই সকলকে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ