স্টাফ রিপোর্টার,মহিষাদল: আমফান দুর্নীতি নিয়ে যখন বিতর্কে তৃণমূলের একাধিক নেতৃত্ব, ঠিক সেই সময় বিজেপি নেতাকে দল থেকে বিতাড়িত করার দাবিতে পোস্টারে চাঞ্চল্য ছড়ালো পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মহিষাদলে।

শনিবার সকালে মহিষাদলে বিজেপির কার্যালয়ের আশেপাশে বেশ কয়েক জায়গায় বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলার সহ-সভাপতি তপন বন্দোপাধ্যায়ের নামে একটি পোস্টার দেখেন স্থানীয়রা। যেখানে বিজেপি বাঁচাও, তপন বন্দোপাধ্যায়কে হাঁটাও দাবি তোলা হয়। যা থেকে বিজেপির গোষ্ঠী কোন্দল এক প্রকারের প্রকাশ্যে এসেছে বলা চলে। এদিকে বিজেপি নেতা তপন বন্দোপাধ্যায় গোটা ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছেন।

গত শুক্রবার সকালে মহিষাদল ব্লকের বেতকুন্ডু গ্রাম পঞ্চায়েতের এক বিজেপি পঞ্চায়েত সদস‍্যের নামে আমপান দুর্নীতি নিয়ে পোস্টার পাওয়া যায়। এরপর ফের মহিষাদলের সিনেমা মোড় এলাকায় বিজেপির তমলুক সাংগঠনিক জেলার সহ- সভাপতি তপন বন্দোপাধ্যায়ের নামে একটি পোস্টার দেখতে পান স্থানীয়রা। যেখানে লেখা রয়েছে ‘বিজেপি বাঁচাও, তপন বন্দোপাধ্যায়কে হাঁটাও।’

 গোটা ঘটনায় তপন বন্দোপাধ্যায় বলেন, “তৃণমূল এটা চক্রান্ত করে করেছে। এছাড়াও আমার দলের বেশকিছুজন যারা কোনও পদ পায়নি তারাই এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত।”

যদিও তৃণমূলের তরফ থেকে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। এক ব্লক তৃণমূল নেতার দাবি, “গুটিকয়েক লোক নিয়ে গড়ে ওঠা বিজেপির বিরুদ্ধে পোস্টার দেওয়ার আমাদের কোনও ইচ্ছা নেই।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.