নয়াদিল্লি: সময় আসছে আয়করের। এমন পরিস্থিতিতে সকলেই তাঁদের পয়সা বাঁচানোর জন উঠেপড়ে লেগেছেন। এখন আমরা পোষ্ট অফিসের এমন বেশ কিছু সেভিংস স্কিম নিয়ে আলোচনা করব, যেখানে আপনি বিনিয়োগের মাধ্যমে ট্যাক্স সাশ্রয় করতে পারবেন এবং পাশাপাশি আপনি ভালো আয়ও পাবেন।

পোস্ট অফিস ক্ষুদ্র সেভিং স্কিমগুলিতে বিনিয়োগের জন্য কেবল একটি ভালো প্লাটফর্ম, একই সঙ্গে এতে একদিকে যেমন ভালো সুদ পাওয়া যায়, তেমনই আয়করের ক্ষেত্রেও সুবিধা মেলে। আসুন এমন কয়েকটি স্কিমের ব্যাপারে জেনে নেওয়া যাক।

আরও পড়ুন – মোদীর সফরের আগের দিন পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে অভিযান সংযুক্ত মোর্চার

ফিক্সড ডিপোজিট

আপনি পোস্ট অফিসে সেভিংস স্কিমে ফিক্সড ডিপোজিট খুলতে পারেন। এতে আপনি নিশ্চিত রিটার্ণ পাবেন। পোস্ট অফিস টাইম ডিপোজিট চার ধরনের সময় হিসেবে হয়। – এক বছর, দুই বছর, তিন বছর এবং পাঁচ বছর। ইন্ডিয়ান পোস্টের বিবরণ মতে, পাঁচ বছরের নির্দিষ্ট আমানতের আওতায় বিনিয়োগে আপনি ট্যাক্স ছাড়ের সুবিধা পেতে পারেন।

পিপিএফ বা পাবলিক প্রভিডেন্ট ফাণ্ড

পোস্ট অফিসের পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ডে (পিপিএফ) বিনিয়োগ করেও আপনি আয়কর সুবিধা পেতে পারেন। এখানে আমানতের উপর সুদ বার্ষিক ভিত্তিতে গণনা করা হয়। এরফলে আপনি একদিকে যেমন কর ছাড় পাচ্ছেন, তেমনই আপনার রিটার্ণও থাকছে মোটারকমের।

আরও পড়ুন – ইঞ্জেকশান আর নয়, পরের সপ্তাহে ট্রায়াল শুরু ন্যাসাল করোনা টিকার

ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট বা এনএসসি

পোস্টঅফিসে ডাকঘর রাষ্ট্রীয় বাঁচত পত্র বা এনএসসি স্কিমটি বেশ জনপ্রিয়। এখানে বিনিয়োগ করলেও কর ছাড়ের সুবিধা মেলে। বছরে সুদের পরিমাণ ধরা হয়। যারা বিনা ঝুঁকিতে ভালো রিটার্ণ চান, তাঁদের জন্য এই ধরণের স্কিম বেশ লাভজনক।এখানে অত্যন্ত কম টাকা বিনিয়োগ করেও ভালো রিটার্ণ মেলে। এই প্রকল্পে সর্বনিম্ন ১০০ টাকা থেকে বিনিয়োগ শুরু করা যায়।

ট্যাক্স ও বিনিয়োগ বিশেষজ্ঞদের মতে এনএসসি স্কিমে যদি কেউ ১ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে, তবে পাঁচ বছর পরে এনএসসি ক্যালকুলেটরের হিসেবে তিনি ফেরত পাবেন ১,৩৮,৯৪৯ টাকা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।