নয়াদিল্লি: চিন ভারত সংঘর্ষের পরে চিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল হামলা এনে ব্যান করেছিল একাধিক চিনা অ্যাপ। যার জেরে কিছুটা হলেও ধাক্কা খেয়েছিল জিনপিং সরকার। তবে এবারে কেন্দ্রের তরফে নেওয়া হয়েছে এক নয়া পদক্ষেপ। জানা গিয়েছে এই মুহূর্তে সেরা ভারতীয় অ্যাপ খোঁজার চেষ্টাতে রত ভারত সরকার। মনে করা হচ্ছে আগামীদিনে ডিজিটাল দুনিয়ার পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে।

কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য প্রযুক্তি দফতরের তরফে জানানো হয়েছে তারা ইতিমধ্যে ৭ হাজার আবেদন গভীর ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছেন। জানা গিয়েছে মন্ত্রকের তরফে দ্রুত সেরা ভারতীয় অ্যাপ যা ভারতীয় সাধারণের কাছে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে তা জানানো হবে।

এই মুহূর্তে ভারত সহ গোটা বিশ্ব ক্রমেই এক নয়া ডিজিটাল দুনিয়ার দিকে এগিয়ে চলেছে। সাধারণ মানুষ নিজেদের প্রয়জনে ব্যবহার করা শুরু করেছে একাধিক অ্যাপ। আর সেই কারণে আগামীর কথা ভেবে ভারতীয় জনগণের জন্য কেন্দ্রের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এই কাজের জন্য নীতি আয়োগ meity এর সঙ্গে যৌথ ভাবে কাজ করে চলেছে। ডিজিটাল ইন্ডিয়ার আত্ম নির্ভর প্রকল্পের জন্যই নেওয়া হয়েছে এই পদক্ষেপ। আর সেই কারণে কেন্দ্রের তথ্য প্রযুক্তি দফতরের তরফে খোঁজার চেষ্টা চলছে সেরা ভারতীয় অ্যাপ যা ইতিমধ্যে দেশের মানুষ ব্যবহার করছে এবং আগামী দিনে যা দেশের অন্যদের দিশা দেখাতে সক্ষম হয়। ইতিমধ্যে প্রায় ৬৯৪০ টি আবেদন বিভিন্ন ক্ষেত্রের জন্য দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে সাধারণের কথা ভেবে সময় মত কেন্দ্রের তরফে আনা হবে একাধিক অ্যাপ।

পাশপাশি কেন্দ্রের তরফে ইতিমধ্যে কোন কোন ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছে তার তথ্য প্রকাশ করেছে। তবে সাইবার নিরাপত্তার উপরে আরও জোর দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। অর্থাৎ আগামী ডিজিটাল দুনিয়ার কথা ভেবে কেন্দ্রের তরফে শুরু হয়েছে নয়া অ্যাপের খোঁজ। যা আন্তর্জাতিক মঞ্চে ডিজিটাল ভারতকে এক নতুন ভাবে উপস্থাপন করতে পারে।

এমনটা মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রযুক্তি গত ক্ষেত্রে আরও উন্নত হওয়ার জন্য কেন্দ্রের তরফে নেওয়া হয়েছিল একাধিক পদক্ষেপ। যার ফলে প্রজুক্তিবিদেরা প্রয়োজন মোট সুবিধা পেতে পারে। তবে এই পদক্ষেপ আগামীদিনের জন্য যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।