টাকা কালিতে ভোটের প্রশ্ন মেটাল কমিশন

0
প্রতীকী ছবি

শুভেন্দু ভট্টাচার্য, কোচবিহার: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘ঐতিহাসিক’ ঘোষণায় তোলপাড় গোটা দেশ৷ রাতারাতি অচল হয়েছে পুরানো ৫০০-হাজার টাকার নোট৷ কালো টাকা সাদা করতে কালঘাম ছুটছে ধনকুবেরদের৷ অচল নোট বদলেও নাজেহাল জনজীবন৷ বন্ধ এটিএমে ভোগান্তি বাড়িয়েছে৷ ব্যাংকের লম্বা লাইনে অতিষ্ঠ গোটা দেশে৷ দেশ জুড়ে চলছে থাকা সাময়িক অস্থিরতার সুযোগ বুঝে কোপ মারতেও শুরু করেছে কালো বাজারিরা৷ দিনে একাধিকবার ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়িয়ে কালো টাকা সাদা করার ফন্দিও এঁটেছে বহু কালো কারবারি৷ আর তাঁদের রুখতেই এবার নয়া পদক্ষেপ পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক৷ মঙ্গলবার আরবিআইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার থেকে নোট বদল করতে গেলে আঙুলে কালি লাগানো হবে৷ আঙুলে কালি লাগানোর ফলে সপ্তাহে সাড়ে চার হাজারের বেশি টাকা বদলালে, তা সহজে ধরা যাবে। এর ফলে ব্যাঙ্কের যেমন কমবে দীর্ঘ লাইন, তেমনই কমবে কালো বাজারীদের উৎপাত৷

মঙ্গলবার আরবিআইয়ের নির্দেশ মত ব্যাঙ্ক ও পোষ্ট অফিস সর্বত্র এই কালি লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে। কিন্তু, সমস্যা দেখা দিয়েছে অন্য জায়গায়৷ আগামী ১৯ মে রাজ্যের  কোচবিহার, তমলুক লোকসভা ও মন্তেশ্বর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন৷ অসমে একটি লোকসভা ও একটি বিধানসভা নির্বাচন৷ অরুণাচলপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, পণ্ডিচেরি, ত্রিপুরায় বিধানসভার উপনির্বাচন৷ মধ্যপ্রদেশেও একটি লোকসভা ও একটি বিধানসভা নির্বাচন হওয়া কথা৷ ফলে, আসন্ন উপ নির্বাচনের আগে গ্রাহকদের আঙুলে কালি একবার লাগানো হলে ভোট দেওয়ার সময় চরম বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ার আশঙ্কা ছিলিই৷ কারণ, টাকা বদলানোর কালি ও ভোটের কালির মধ্যে মধ্যে পার্থক্য করা নিয়েই মঙ্গলবার দুপুর থেকেই চরম ধোঁয়াশা তৈরি হতে থাকে৷ দিনভর বিভ্রান্তি তৈরি হতেই বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার জেলা শাসককে বলেন, ‘‘বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ৷ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷’’

ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের নির্দেশিকা জারি হতেই তড়িঘড়ি বৈঠকে বসে জাতীয় নির্বাচন কমিশন৷ ভোট ও নোটের কালি ব্যবহার নিয়ে তৈরি হওয়া জটিলতা কাটিয়ে নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দেয়, আসন্ন উপ-নির্বাচনের কথা ভেবেই ব্যাংক গ্রাহকদের টাকা বদলের জন্য বাঁ হাতের পরিবর্তে ডান হাতের তর্জনীতে কালি ব্যবহার করা হবে৷

মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থসচিব শক্তিকান্ত দাস  জানান, ‘‘ব্যাংকের একই শাখায় বা বিভিন্ন শাখায় বারংবার পুরানো নোট বদলে অনেকে কালো টাকা সাদা করে নিচ্ছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি৷ অনেক জায়গা থেকে খবর এসেছে যে, দলে দলে ভাগ হয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি মোটা অঙ্কের নগদ ৱদলে নিচ্ছেন৷ ব্যাঙ্কের সামনে লম্বা লাইন হওয়ার এটা একটা বড় কারণ৷’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।