টাকা কালিতে ভোটের প্রশ্ন মেটাল কমিশন

0
প্রতীকী ছবি

শুভেন্দু ভট্টাচার্য, কোচবিহার: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘ঐতিহাসিক’ ঘোষণায় তোলপাড় গোটা দেশ৷ রাতারাতি অচল হয়েছে পুরানো ৫০০-হাজার টাকার নোট৷ কালো টাকা সাদা করতে কালঘাম ছুটছে ধনকুবেরদের৷ অচল নোট বদলেও নাজেহাল জনজীবন৷ বন্ধ এটিএমে ভোগান্তি বাড়িয়েছে৷ ব্যাংকের লম্বা লাইনে অতিষ্ঠ গোটা দেশে৷ দেশ জুড়ে চলছে থাকা সাময়িক অস্থিরতার সুযোগ বুঝে কোপ মারতেও শুরু করেছে কালো বাজারিরা৷ দিনে একাধিকবার ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়িয়ে কালো টাকা সাদা করার ফন্দিও এঁটেছে বহু কালো কারবারি৷ আর তাঁদের রুখতেই এবার নয়া পদক্ষেপ পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক৷ মঙ্গলবার আরবিআইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবার থেকে নোট বদল করতে গেলে আঙুলে কালি লাগানো হবে৷ আঙুলে কালি লাগানোর ফলে সপ্তাহে সাড়ে চার হাজারের বেশি টাকা বদলালে, তা সহজে ধরা যাবে। এর ফলে ব্যাঙ্কের যেমন কমবে দীর্ঘ লাইন, তেমনই কমবে কালো বাজারীদের উৎপাত৷

মঙ্গলবার আরবিআইয়ের নির্দেশ মত ব্যাঙ্ক ও পোষ্ট অফিস সর্বত্র এই কালি লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে। কিন্তু, সমস্যা দেখা দিয়েছে অন্য জায়গায়৷ আগামী ১৯ মে রাজ্যের  কোচবিহার, তমলুক লোকসভা ও মন্তেশ্বর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন৷ অসমে একটি লোকসভা ও একটি বিধানসভা নির্বাচন৷ অরুণাচলপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, পণ্ডিচেরি, ত্রিপুরায় বিধানসভার উপনির্বাচন৷ মধ্যপ্রদেশেও একটি লোকসভা ও একটি বিধানসভা নির্বাচন হওয়া কথা৷ ফলে, আসন্ন উপ নির্বাচনের আগে গ্রাহকদের আঙুলে কালি একবার লাগানো হলে ভোট দেওয়ার সময় চরম বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ার আশঙ্কা ছিলিই৷ কারণ, টাকা বদলানোর কালি ও ভোটের কালির মধ্যে মধ্যে পার্থক্য করা নিয়েই মঙ্গলবার দুপুর থেকেই চরম ধোঁয়াশা তৈরি হতে থাকে৷ দিনভর বিভ্রান্তি তৈরি হতেই বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার জেলা শাসককে বলেন, ‘‘বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ৷ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷’’

ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের নির্দেশিকা জারি হতেই তড়িঘড়ি বৈঠকে বসে জাতীয় নির্বাচন কমিশন৷ ভোট ও নোটের কালি ব্যবহার নিয়ে তৈরি হওয়া জটিলতা কাটিয়ে নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দেয়, আসন্ন উপ-নির্বাচনের কথা ভেবেই ব্যাংক গ্রাহকদের টাকা বদলের জন্য বাঁ হাতের পরিবর্তে ডান হাতের তর্জনীতে কালি ব্যবহার করা হবে৷

মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় অর্থসচিব শক্তিকান্ত দাস  জানান, ‘‘ব্যাংকের একই শাখায় বা বিভিন্ন শাখায় বারংবার পুরানো নোট বদলে অনেকে কালো টাকা সাদা করে নিচ্ছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি৷ অনেক জায়গা থেকে খবর এসেছে যে, দলে দলে ভাগ হয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি মোটা অঙ্কের নগদ ৱদলে নিচ্ছেন৷ ব্যাঙ্কের সামনে লম্বা লাইন হওয়ার এটা একটা বড় কারণ৷’’