সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা : অসাধু ব্যবসায়ীদের ধরতে এবার বিভিন্ন সবজি বাজারে হানা দেবে পুলিশ। কিছু ফঁড়েদের জন্য আকাশ ছোঁয়া সবজি বাজার। পাইকারি বাজারে যে দামে আলু পিঁয়াজ সবজি বিক্রি হয়, তার থেকে অনেক বেশি দামে বিক্রি হয় খুচরো বাজারে।

আলু পিঁয়াজ সবজির আকাশছোঁয়া দাম নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে নবান্নে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক ডেকেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য সরকারের টাস্কফোর্স ছাড়াও ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কৃষি দফতর ও মৎস্য দফতরের আধিকারিকেরা । এছাড়া কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা, মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা থেকে শুরু করে সরকারের শীর্ষ আমলারা। বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী জানান , আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে।

তিনি আরও জানান, ফঁড়েদের ঠেকাতে পুলিশ এবং এনফোর্সমেন্টকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দরকার হলে সুফল বাংলা আরও বাড়ানো হবে। সুফল বাংলা প্রতিকেজি পিঁয়াজ ৫৯ টাকায় বিক্রি করছে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করেন তিনি। বলেন, কেন্দ্রীয় সংস্থা ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল কোঅপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া বা নাফেড চুক্তি ভেঙেছে । তাদের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হয়েছিল ২৫ টাকা কিলো দরে পেঁয়াজ দেবে। কিন্তু ওরা সেই চুক্তি ভঙ্গ করেছে।

আলু নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আলু যা আছে তা পর্যাপ্ত। আলুর কোনও ঘাটতি হবে না। ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত চলে যাবে।

২০১১ সালে ক্ষমতায় এসে রাজ্য সরকার দাম নিয়ন্ত্রণে গঠন করে একটি টাস্ক ফোর্স৷ ওই টাস্ক ফোর্সের সদস্য কমল দে জানান , আলুর দাম যাতে কমানো যায়, তার জন্য আলু ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পৃথক বৈঠক করা হচ্ছে। তাছাড়া আর কিছু দিনের মধ্যেই নতুন আলু বাজারে আসবে।

বুলবুলের তাণ্ডবে বেশ কিছু এলাকায় সবজি নষ্ট হয়েছে। আর সেই সুযোগে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বেশি দামে সবজি বিক্রি করছে। আকাশছোঁয়া নিত্যপ্রয়োজনীয় সবজি ।বলতে গেলে মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে গিয়েছে আলু পিঁয়াজ ও সবজির দাম। কিছু ফঁড়েদের জন্যেই এই মূল্য বৃদ্ধি বলে অভিযোগ। এবার সেই সব অসাধু ব্যবসায়ীদের ধরতে বাজারে বাজারে হানা দেবে পুলিশ। শুধু কলকাতাতেই নয়, জেলায় জেলায়ও অভিযানে নামবে পুলিশ ও এনফোর্সমেন্ট।