জলপাইগুড়ি: নির্বাচনের আগের রাতে নাকা চেকিং চলাকালীন এক ব্যবসায়ীর থেকে ১৫ লক্ষ টাকা বাজেয়াপ্ত করল জলপাইগুড়ি জেলা পুলিশ।

রাজগঞ্জ থানা এলাকায় জাতীয় সড়কে নাকা চলাকালীন একটি ছোটো চার চাকার গাড়ি থেকে টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফায় জলপাইগুড়িতে চলছে ভোট। ভোটের সময় আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু থাকায় মোটা অঙ্কের নগদে লেনদেন বন্ধ রাখতে হয়। কিন্তু ভোটের ঠিক আগের দিন শিলিগুড়ির একটি সমবায় ব্যাংক থেকে ১৫লক্ষ টাকা নিয়ে ময়নাগুড়ি যাচ্ছিলেন এক হিমঘর মালিক দুর্গা সেন।

রাজগঞ্জে নাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ তাকে প্রশ্ন করলে তিনি জানান হীমঘরের শ্রমিকদের বেতন দিতেই এই টাকা নিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। যদিও তৎক্ষনাৎ তাকে আটক করে জলপাইগুড়িতে জেলা পুলিশ সুপারের দফতরে নিয়ে আসে পুলিশ।

পুলিশের সুপারের কাছে প্রাথমিক ভাবে প্রশ্নের কোনোও উত্তর ওই ব্যবসায়ী দিতে না পারায় তাঁকে আটক করে তার যাবতীয় টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই আয়কর বিভাগকে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলেও জেলা পুলিশ সূত্রে খবর।

যদিও ওই ব্যবসায়ীর দাবি তিনি যাবতীয় প্রমান দাখিল করেছেন। এবিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার অমিতাভ মাইতি সাংবাদিকদের জানান, ওই ব্যবসায়ী বলতেই পারেননি তিনি আগে কবে এত টাকা তুলেছেন। এমনকি যদি শ্রমিকদের মজুরির বিষয় থাকে তবে তা কেন এতটাকা নগদে নেওয়া হলো তাও জানাতে পারেননি তিনি। এই টাকা ভোটারদের মধ্যে বিলি হবার যথেষ্ট সম্ভাবনা ছিল। তাই সবদিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও তাঁর দাবি। গোটা বিষয়টিকে পুলিশ নিজের সাফল্য হিসাবেই দেখছে।