স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: ‘সেভ ড্রাইভ সেভ লাইফ’-এর নামে টাকা তুলছে পুলিশ৷ এবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করলেন খোদ পুলিশমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বুধবার দিঘায় প্রশাসনিক বৈঠকে তিনি বলেন, এটা সচেতনতামূলক প্রচার৷ তারজন্য গরীব মানুষগুলোর থেকে টাকা নিতে কে বলেছে?

‘সেভ ড্রাইভ সেভ লাইফ’- পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু আটকাতে ২০১৬ সালে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অভিযান শুরু হওয়ায় দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই কমেছে বলে প্রশাসনের দাবি৷ তবে অভিযানের নাম করে গাড়িআরোহীদের থেকে টাকা তোলা হচ্ছে বলে অনেকদিন ধরেই অভিযোগ উঠছে৷ আর এতে ক্রমশই পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের৷

আরও পড়ুন : শিক্ষকদের উপর ব্যাপক লাঠিচার্জ, ধুন্ধুমার কান্ড কলকাতায়

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিঘার প্রশাসনিক বৈঠকে বলেন, এসব কি হচ্ছে? থানার অফিসাররা খালি বলছে গাড়ি ধরো আর টাকা নাও৷ সিভিক ভলেন্টিয়ারদের দিয়ে টাকা তোলানো হচ্ছে৷ এসব বন্ধ করতে হবে৷ এরপরই জেলার পুলিশ সুপারকে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেন তিনি৷ মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কলকাতার পুলিশ কমিশনারকেও তিনি বিষয়টি দেখতে বলেছেন৷

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “কেউ সত্যি ন্যাশনাল হাইওয়েতে দুষ্টুমি করলে তাকে কেস দিন৷ অন্যায় করলে রেয়াত নয়৷ কিন্তু গরিব মানুষ যার পকেটে ৫০০ টাকা থাকলে তার থেকে কেন ২০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে? অলি-গলিতে ঢুকে সাধারণ মানুষকে হয়রান করা হচ্ছে৷ আইসি সিভিক ভলান্টিয়ারদের বলে দিচ্ছেন যা গাড়ি ধরে টাকা নে৷ সিভিক ভলান্টিয়াররা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নয়৷ তাদের দিয়ে কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে? আগে ওদের ট্রেনিং দিন৷ আমরা কি চাই সলিউশন না পলিউশন? সলিউশন চাইলে মানবিক হতে হবে৷” এদিন ওই মঞ্চে রাজ্য পুলিশের ডিজি সুরজিৎ কর পুরকায়স্থ ছিলেন৷ তাঁকে বিষয়টি দেখতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ দুর্ঘটনা রোধে দিঘাগামী রাস্তায় সিসিটিভি বসানোর পরামর্শও দিয়েছেন তিনি৷