শংকর দাস, বালুরঘাট: সন্তান তা সে ছেলেই হোক অথবা মেয়ে। দুইই সমান কারণ ছেলে ও মেয়ে সন্তানের মধ্যে নেই কোনও তফাত। মেয়েদেরও সেভাবে বেড়ে ওঠা ও লেখাপড়ার সুযোগ দিলে তারাও পুত্র সন্তানের চাইতে কোন কিছুতে পিছিয়ে থাকে না। পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বাবা মা’য়ের চোখ ফোঁটাতে সরকারের তরফে নানান কর্মসূচি পালিত হয় বছর ভর।

এমনকি মেয়েদের বড় করে তোলা ও লেখাপড়া শেখানোর জন্য কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের তরফে রয়েছে যথাক্রমে সুকন্যা ও কন্যাশ্রীর মত প্রকল্পও। কিন্তু এতকিছুর মধ্যেও আজও কোথাও না কোথাও কন্যা সন্তানের প্রতি অবহেলা। বাবা অথবা আত্মীয়দের অনেকে কন্যা সন্তানের কথা শুনলেই শুরু করেন তাচ্ছিল্য ও অত্যাচার।

এমনই এক অমানবিক ঘটনার শিকার হয়ে অসহায় অবস্থায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন মলি দাস ও তাঁর সদ্যজাত শিশু কন্যা। ২৮ দিনের কন্যা সন্তানকে নিয়ে নিদারুণ অসহায় অবস্থার মধ্যে পড়েছেন তিনি। কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় স্বামী দুইজনকে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে গিয়েছেন। নিজের বাপের লোকেরাও কন্যা সন্তান হওয়ায় বাড়িতে ঠাই পায়নি।

দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জ থানার বিশ্বনাথপুরে বাপের বাড়ি মলি দাসের। দুই বছর আগে প্রতিবেশীর বাড়িতে বেরাতে আসা বাংলাদেশী যুবক নিতাই দাসের সঙ্গে পালিয়ে বিয়ে করেছিলেন তিনি। বিয়ের পর তিনি সন্তান সম্ভাবনা হলে ইসলামপুরে মামা শ্বশুরের বাড়িতে তাকে রেখে ভিনরাজ্যে কাজ করতে চলে যান স্বামী। দিন ২৮আগে ইসলামপুরেই তার কন্যা সন্তান হয়। খবর পেয়ে ফিরে এসে স্ত্রী ও সদ্যজাত কন্যাকে কুমারগঞ্জে বাপের বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার নাম করে বালুরঘাটের পতিরাম এলাকায় দুইজনকে ছেড়ে দিয়ে স্বামী পালিয়ে গিয়েছেন।

এরপর অসহায় অবস্থায় কোলের শিশুকে নিয়ে বিশ্বনাথপুরে বাপের বাড়ি গেলে কন্যা সন্তান হওয়ায় তারাও বিতাড়িত করে দেন। এমতাবস্থায় প্রথমে কুমারগঞ্জ থানায় গেলে পুলিশ কোন অভিযোগ নেওয়া তো দূর শিশু কন্যার প্রতি সামান্য সহানুভূতিও দেখায়নি। অবশেষে বালুরঘাট থানার পুলিশ হাসপাতালের প্রতীক্ষালয় থেকে শিশু সহ মাকে উদ্ধার করে সিডব্লিউসি’র হাতে তুলে দিয়েছে।

এই ব্যাপারে পুলিশের ডিএসপি (হেডকোয়াটার) ধীমান মিত্র জানিয়েছেন, প্রতীক্ষালয়ে শিশু সমেত মহিলার অসহায়তার খবর পাওয়া মাত্রই তাঁদের দুইজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। শিশুটির মায়ের অভিযোগ কন্যা সন্তান হওয়ায় তাঁর স্বামী দুজনকে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে গিয়েছে। এমনকি মহিলার বাপের বাড়ির লোকেরাও তাঁকে তাড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ।