স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নাচের সুযোগ দিয়ে মোটা টাকা আয়ের লোভ দেখিয়ে অপহরণের অভিযোগ৷ টানা কয়েকমাস ধরে আটকে রাখা তরুণীকে বিহার থেকে উদ্ধার করল হরিদেবপুর থানার পুলিশ৷ বুধবার বিহারের ছাপরা থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করেছে হরিদেবপুর থানার পুলিশ৷ একই জায়গায় আটকে রাখা আরও তিন তরুণীকেও উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ৷ অপহরণ করে আটকে রাখার অভিযোগে চন্দন কুমার নামে অভিযুক্তকেও গ্রেফতার করা হয়েছে৷

পুলিশ জানিয়েছে, হরিদেবপুরের বাসিন্দা ওই তরুণী পেশায় নৃত্যশিল্পী৷ বিহারে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নাচ পরিবেশন করে মোটা টাকা রোজগারের লোভ দেখিয়ে তাকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় তার প্রেমিক৷ তারপর সেখানেই দীর্ঘদিন আটকে রাখা হয়৷ বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগও বন্ধ করে দেওয়া হয়৷ ঘরে আটকে রেখে দীর্ঘদিন ধরে অত্যাচারও করা হত তাদের উপর৷ শেষমেষ ফোনের সূত্র ধরে এল সাফল্য৷

পুলিশ জানিয়েছে, গত মার্চ মাসে বাড়ি থেকে নিখোঁজ ওই তরুণী৷ বিহারে নাচের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে যাচ্ছে বলে বাড়ি থেকে বেরোয়৷ তারপর থেকে বাড়িতে আর যোগাযোগ করেনি তরুণী৷ কোথায়, কীভাবে রয়েছে, সে ব্যাপারে পরিবারের লোকেদের কাছে কোনও খবর ছিল না৷ সম্প্রতি বিহারের ছাপরা থেকে লুকিয়ে ফোন করে গোটা ঘটনা জানায় তরুণী৷ তারপর তাঁর পরিবারের লোকেরা হরিদেবপুর থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন৷ সেই ঘটনার তদন্তে নেমে বিহারে যায় পুলিশের দল৷ ছাপরা থেকে অপহৃত তরুণীকে উদ্ধারের পাশাপাশি গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.