বর্ধমান (পূর্ব বর্ধমান): দীপাবলি উৎসবের মাঝেই মহিলা আইনজীবীকে নৃশংস খুনের ঘটনা। জেলার জামালপুরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। সন্দেহ করা হচ্ছে ডাকাতি করতে এসে ডাকাতরা এই মহিলাকে খুন করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃত আইনজীবীর নাম মিতালি ঘোষ। তিনি পূর্ব বর্ধমান জেলা আদালতের আইনজীবী ছিলেন। ৫৮ বছরের মিতালী একাই থাকতেন জামালপুরের আঝাপুরে। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। চাঞ্চল্য ছড়িয়ে জেলার আইনজীবী মহলেও।

শনিবার সকালে পরিচারিকা বাড়ির দরজায় ধাক্কা দিতে থাকলেও কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে এলাকাবাসীদের জানান। কয়েকজন গ্রামবাসী আসেন। এরপর তারা পাঁচিল টপকে বাড়ির ভেতরে ঢোকেন। সেখানে ঢুকে তাঁরা দেখেন বাড়ির উঠোনে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পরে রয়েছেন রক্তাক্ত ওই মহিলা আইনজীবী।

এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। ঘটনাস্থলে আসে জামালপুর থানার পুলিশ। খবর পেয়ে জেলা এবং মহকুমার পুলিশ আধিকারিকেরাও ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিকেল কলেজের পাঠিয়েছে।

তদন্তে উঠে এসেছে, ঘরের ভিতর সব লণ্ডভণ্ড। মনে করা হচ্ছে এটা ডাকাতির ঘটনা। প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, আইনজীবী মিতালির মাথায় ভারি কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছিল। সেই আঘাতেই তার মৃত্যু হয়। যদিও খুনের কারণ সম্পর্কে এখনও কিছু বলা যাচ্ছে না বলে পুলিশ জানিয়েছে।

পূর্ব বর্ধমান জেলা আদালতের আইনজীবীরাও খবর পেয়ে ওই আইনজীবীর বাড়িতে পৌঁছান। বর্ধমান বার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সদন তা জানিয়েছেন, অবিলম্বে পুলিশ এই খুনের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেফতার করুক। এই ঘটনায় অভিযুক্ত কেউ ধরা পরলে আমরা কোনও আইনজীবী তার হয়ে আদালতে মামলা লড়ব না বলেও জানিয়েছেন তিনি।