স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: বোমাবাজির জবাবে পুলিশের এনকাউন্টার, নিকেশ করা গেল কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে৷ হিন্দি সিনেমার কায়দায় এনকাউন্টার পুলিশের৷ শুক্রবার দুপুরে জগদ্দল থানার পুলিশ এই এনকাউন্টার করে৷ এই এনকাউন্টারের ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়ার সুন্দিয়া হাউজিং এস্টেট এলাকায়। পুলিশের ছোঁড়া গুলিতে মৃত্যু হয়েছে প্রভু সাউ নামে এক দুষ্কৃতীর।

গোটা ঘটনায় তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে জগদ্দল থানা এলাকায় । যে কোন মূল্যে ভাটপাড়া এলাকায় শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে মরিয়া পুলিশ। শুক্রবার কয়েকজন দুষ্কৃতী জগদ্দলের ১২ নম্বর গলিতে ফের বোমাবাজি শুরু করে । বোমাবাজির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে জগদ্দল থানার পুলিশ। জগদ্দল থানার পুলিশ বিশাল বাহিনী নিয়ে এলে দুষ্কৃতীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ে বলে অভিযোগ।

পড়ুন: কাটমানির তালিকা পেতে বিডিও অফিস অভিযান করবে বিজেপি

এরপরই ওই দুষ্কৃতীদের ধাওয়া করে জগদ্দল থানার পুলিশ। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ওই দুষ্কৃতীরা সুন্দিয়া হাউজিং এস্টেট এলাকা দিয়ে পালাতে থাকে। পুলিশ ওই এলাকার বাসিন্দাদের ঘরে দরজা বন্ধ করে বাড়ির ভেতর থাকতে বলে। শুরু হয় এনকাউন্টার।

দুষ্কৃতীরা পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে সুন্দিয়া হাউজিং এস্টেটের বাড়ির অ্যাসবেস্টাসের ছাদের উপর দিয়ে পালাতে যায়৷ তখনই পুলিশের ছোঁড়া গুলি মাথায় লাগে এক দুষ্কৃতীর।

দুষ্কৃতীটি সুন্দিয়া পাড়া হাউজিং এস্টেট এর এক গৃহস্থ ঘরের অ্যাসবেসটস এর চাল ভেঙ্গে ঘরের মেঝেতে পড়ে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে বারাকপুর বি এন বসু মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা মৃত ঘোষণা করে৷ এই ঘটনা সম্পর্কে এখনো কোন প্রতিক্রিয়া দেয়নি পুলিশ।

পড়ুন: কংগ্রেস ছাড়ার পুরস্কার, বিজেপিতে মন্ত্রিত্ব পেতে পারেন তিন বিধায়ক

সুন্দিয়া হাউজিং এস্টেটর বাসিন্দা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির অ্যাসবেসটস ভেঙেই তার ঘরে পড়ে গুলিবিদ্ধ ওই দুষ্কৃতী।

ঘটনার পর থেকেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন সুন্দিয়া হাউজিং এস্টেটের বাসিন্দারা। এস্টেটের বাসিন্দা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন “গুলির শব্দ শুনে আমরা জানলা বন্ধ করে ঘরে ছিলাম হঠাৎ আমার শোবার ঘরে বিকট শব্দ হয় তখন ছুটে গিয়ে দেখি একজন রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পরে আছে আর উপরের অ্যাসবেসটস ভাঙ্গা। আমরা আর কিছুই জানি না তবে এখানে আগে এসব ছিল না এই ঘটনায় আমরা খুবই আতঙ্কিত।”