কলকাতা: আর দু’এক দিনের অপেক্ষা৷ ঘটি-বাঙালের ফুটবল আবেগে যুক্ত হতে চলেছে যুব বিশ্বকাপ৷ বাংলার মাটিতে ফুটবলের বিশ্ব যুদ্ধের প্রস্তুতি প্রায় শেষ৷ নতুন ভাবে সেজে উঠেছে সল্টলেক৷ পড়েছে বিজ্ঞাপন৷ ফুটবলের বিশ্বযুদ্ধ সুষ্ঠুভাবে শেষ করাতে কোমর বেধেছে পুলিশ৷ সর্বশক্তি দিয়ে মাঠে নেমে পড়েছে বিধাননগর কমিশনারেট৷ নিরাপত্তা থেকে ট্র্যাফিক ব্যবস্থা সবেরই ব্লুপ্রিন্ট ইতিমধ্যে প্রস্তুত হয়ে গিয়েছে৷ এখন সেই পরিকল্পনাকেই ঠিকমতো বাস্তবায়িত করতে চাই তাঁরা৷

২০১২ সালে কমিশনারেট গঠনের পর বিধাননগর কমিশনারেটের কাছে এটাই প্রথম মেগা ইভেন্ট৷ ফলে, নিজেদের মুখ রক্ষায় সমস্ত দিক থেকেই তৈরি পুলিশ৷ কমিশনারেট সূত্রে জানা গিয়েছে, গেটা ইভেন্টে মাঠের ভিতর ঢোকার জন্য বৈধ টিকিট নিয়ে খেলা শুরুর দু’ঘণ্টা আগে সংশ্লিষ্ট দর্শককে মাঠে আসতে বলা হয়েছে৷ পাঁচ দফায় দর্শককে চেকিং করা হবে৷ মোবাইল ও মানি ব্যাগ ছাড়া ভিতরে অন্য যে কোনও সামগ্রীর প্রবেশ নিষিদ্ধ৷ মাঠের ভিতরে জল-ঠান্ডা পানীয় বিক্রি করতে হবে প্লাস্টিকের পাউচেই৷

দর্শকদের নজরদারির জন্য মাঠের ভিতরে তিন হাজার পুলিশ কর্মী মোতায়েন করা হচ্ছে৷ এঁদের মধ্যে যেমন রয়েছেন আইপিএস পদমর্যাদার ৩৫ জন অফিসার তেমনই রয়েছেন ৪০০ জন বিশেষ প্রশিক্ষিত অফিসারও৷ থাকছে নজরদারির জন্য ২৬০টি সিসি ক্যামেরা৷ সমগ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার উপর চোখ রাখতে স্টেডিয়ামের ভিতরে ও কমিশনারেটের সদর দন্তরে কন্ট্রোল রুম খোলা থাকবে৷ মাঠে কোনও ধরনের বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হলে মাত্র ৮ মিনিটে ৭টি গেট দিয়ে ৬৬ হাজার দর্শককে বের করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে৷

নিরাপত্তার মতো ট্র্যাফিক ব্যবস্থার ক্ষেত্রেও যুব বিশ্বকাপ চলাকালীন বেশকিছু নিয়ম চালু করছে পুলিশ৷ ৬৬ হাজার দর্শকদের কথা মাথায় রেখে ২৬০০ গাড়ি পার্কিংয়ের বন্দোবস্ত করা হচ্ছে৷ এর মধ্যে স্টেডিয়াম চত্বরে ২৫০টি গাড়ি পার্কিং করা হবে৷ বাকি গাড়িগুলি রাখা যাবে সুভাষ সরোবর, সল্টলেকের ১৩ নম্বর ট্র্যাঙ্কের মাঠে৷ জিডি , এইচবি ব্লকের মাঠে এবং ১৪ নম্বর অ্যাইল্যান্ডে গাড়ি রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷

পরিবহণের উপরও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে৷ দর্শকরা জন্য থাকছে ২০০টি স্পেশাল বাস৷ ম্যাচের দিনগুলিতে ডানলপ, বারাসত, ডানকুনি, সাঁতরাগাছি, এসপ্ল্যানেড, জোকা, ঠাকুরপুকুর, পর্ণশ্রী, যাদবপুর, গড়িয়া থেকে স্পেশাল বাস পাওয়া যাবে বলে জানানো হয়েছে৷ যান চলাচল নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য স্টেডিয়ামের দু’কিলোমিটারের মধ্যে অটো চলতে দেওয়া হবে না বলে জানানো হয়েছে৷ তবে, অ্যাপ ক্যাব এবং বাইক ট্যাক্সি চলবে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও