প্রতীকী ছবি

চন্ডীগড়: দিল্লির বাসিন্দা ১৯ বছর বয়সী এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ ধৃত মহম্মদ ইরফানের কাছ থেকে পাঁচশো গ্রাম হিরোইন উদ্ধার করা হয়৷ ধৃতকে জেরা করে তদন্তকারীরা জানতে পারেন ফেসবুকে নাইজেরিয়ান একটি মহিলার সঙ্গে ইরফানের আলাপ হয়৷ তার পরে তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব হয়৷

তারপরে খুব সহজে আয়ের পথ হিসেবে পাচারের কাজের বিষয়ে টোপ দেয় সেই মহিলা৷ পুলিশ কর্তারা জানান, সেই টোপ গিলে নেয় এই যুবক৷ জলন্ধর এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় জুতোর নীচে হেরোইন লুকিয়ে পাচার করার ছক কষে ছিল এই যুবক৷ ফিল্লোরের কাছে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে এই যুবকের সন্ধান পায় পুলিশ৷

তার কাছ থেকে হেরোইন উদ্ধার করা হয়৷ পুলিশ কর্তাদের সন্দেহ হওয়ায় ফিল্লোরে একটি বাসে তারা তল্লাশি চালায়৷ সেই বাসে করে এই হেরোইন পাচার করছিল যুবক৷ তদন্তকারীরা জানান, তার কাছ থেকে একটি ব্যাগ পাওয়া যায়৷ তার মধ্যে এক জোড়া মহিলাদের জুতো রাখা ছিল৷ জুতোর ওজন অন্যান্য জুতোর তুলনায় অনেকটাই বেশি বলে বুঝতে পারেন পুলিশ কর্তারা৷

জুতোটিকে ব্লেড দিয়ে কাটতেই তার মধ্যে থেকে হেরোইন উদ্ধার হয়৷ জুতো থেকে ২৫০ গ্রাম ওজনের দুটি হেরোইনের থলি উদ্ধার করে পুলিশ৷ পুলিশ জানায় অভিযুক্ত ইরফান দিল্লিতে ডিস্টেন্স এডুকেশনে বিএ-র পরাশুনো করছে৷ এই যুবক হেরোইন কোন জায়গা থেকে এনে কোথায় পাচার করছিল তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷ অভিযুক্ত যুবককে দফায় দফায় জেরা করছে পুলিশ৷ তার পাশাপাশী নাইজেরিয়ন মহিলার খোঁজ শুরু করেছেন তদন্তকারিরা৷ জানা যাচ্ছে এই হেরোইন পাচার করার জন্য এই যুবক কে ৩৫ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ছিল৷