স্টাফ রিপোর্টার, বারাসত: ফের রাজনীতির আগুনে উত্তপ্ত উত্তর ২৪ পরগনার ঠাকুরনগরের ঠাকুরবাড়ি৷ এবার মন্দিরে চুরির ঘটনায় পুলিশ নিগ্রহের অভিযোগে গ্রেফতার প্রাক্তন মন্ত্রী মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরের ছোট ছেলে শান্তনু ঠাকুর৷

শনিবার শান্তনুর গ্রেফতারির খবর ছড়িয়ে পড়তেই মতুয়া সমাজের অন্দরে শুরু হয়েছে তীব্র প্রতিক্রিয়া৷ শান্তনুর গ্রেফতারির পেছনে ‘রাজনীতি’ রয়েছে বলে মনে করছেন মতুয়া সম্প্রদায়ের একাংশ৷

আরও পড়ুন: পাঁচ বছরের শিশুকে গণধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারল তিন নাবালক

পুলিশ সূত্রে খবর, বনগাঁ মহকুমার গাইঘাটার ঠাকুরনগরে পুলিশ আধিকারিকদের নিগ্রহ ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে প্রাক্তন মন্ত্রী মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরের ছোট ছেলে শান্তনু ঠাকুরকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ সঙ্গে তাঁর আরও এক সহযোগীকে গ্রেফতার করে গাইঘাটা থানার পুলিশ৷ অভিযোগ, চুরির তদন্তে গিয়ে গাইঘাটা থানার ওসি অরিন্দম মুখোপাধ্যায় ও এক সাব-ইন্সপেক্টরকে হেনস্তার মুখে পড়তে হয়৷

ঘটনার সূত্রপাত গত ১৯ মার্চ৷ ঠাকুরনগররের হরিচাঁদ-গুরুচাঁদের মন্দির থেকে খোয়া যায় বেশ কিছু সামগ্রী৷ সোনা-সহ একাধিক সামগ্রী চুরি হয় বলে মতুয়া মহাসংঘের তরফে গাইঘাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷ পুলিশ তদন্তে নেবে মন্দিরের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে গত বুধবার অমিতনারায়ণ গুহ নামে একজনকে গ্রেফতার করে৷

আরও পড়ুন: রেশন-দুর্নীতি রুখতে এবার অনলাইনে নজরদারি করবে মমতার সরকার

শুক্রবার রাতে আরও দু’জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ অভিযোগ, ওই দুই ব্যক্তিকে বাঁচাতে ঝাঁপিয়ে পড়েন শান্তনু ঠাকুর৷ শুরু হয় ধস্তাধস্তি৷ অভিযুক্তকে ছিনিয়ে নেওয়া হয় বলেও অভিযোগ৷ পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অপরাধে শান্তনু ঠাকুরকেও গ্রেফতার করে পুলিশ৷

এদিন রাতের এই ঘটনার পর থেকে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়ায় ঠাকুরবাড়ি চত্বরে৷ শান্তনু ঠাকুরের গ্রেফতারির পেছনে রাজনীতির অভিযোগও তোলেন তাঁর অনুগামীরা৷ তাঁদের দাবি, রাজনীতির কাদা ছোড়াছুঁড়ি থেকে ঠাকুরবাড়িকে বাঁচাতে দীর্ঘ তিন চার বছর ধরে একাই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন শান্তনু৷ ঠাকুরবাড়িকে রাজনীতি মুক্তি একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তুলতে বেশ কিছু উদ্যোগও নিয়েছিলেন তিনি৷ মতুয়া সমাজের একাংশের কাছে ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়েও উঠছিলেন তিনি৷ অভিযোগ, তাঁর এই ভাবমূর্তি নষ্ট করার লক্ষ্যেই পুলিশ শান্তনুকে গ্রেফতার করেছে৷

আরও পড়ুন: মার্কসের মূর্তি সংস্কার করে বিজেপিকে বার্তা তৃণমূলের