স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: জুটমিলের সামনে শ্রমিকদের আন্দোলন ভাঙতে মধ্য রাতে পুলিশি অভিযান৷ সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটে উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ের কেলভিন জুটমিলে৷ অভিযোগ, শ্রমিকদের ধরনা তুলতে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পুলিশ৷ যদিও পুলিশের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন: হার দিয়ে শুরু ভারতের এশিয়ান গেমস অভিযান

কারখানার শ্রমিকদের অভিযোগ, সোমবার দিনভর জুটমিলের সামনে ধরনা ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন তাঁরা। তাঁদের দাবি পূরণের জন্য কারখানার ভিতরেই ম্যানেজমেন্টের লোকজনকে মধ্য রাত পর্যন্ত আটকে রেখেছিলেন তারা।

অবশেষে খবর পেয়ে টিটাগড় থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী এবং কমব্যাট ফোর্স যায় শ্রমিকদের ঘেরাও তুলতে। তখনও কারখানার ভিতরে হাজার খানেক শ্রমিক ম্যানেজমেন্টের প্রতিনিধিদের ঘেরাও করে রেখেছিলেন। কিন্তু অভিযোগ, পুলিশ ও কমব্যাট ফোর্স শ্রমিকদের উপর লাঠিচার্জ করে তাদের বিক্ষোভ তুলে দেয়৷ ফলে কারখানার ভিতর থেকে ঘেরাও মুক্ত হন ম্যনেজমেনন্টের প্রতিনিধিরা।

আরও পড়ুন: মাদক পাচার চক্রে জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার তিন

এদিকে কারখানার মধ্যে চলা ব্যাপক শ্রমিক বিক্ষোভের জেরে কর্তৃপক্ষ শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার ভোর রাতে কারখানা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। কারখানার গেটে কেলভিন জুট মিল কর্তৃপক্ষ সাসপেনশন অফ ওয়ার্কের নোটিশ ঝুলিয়ে দেয়।

প্রসঙ্গত, শ্রমিক-মালিক বিরোধের জেরে সোমবার টিটাগড়ে বন্ধ হয় কেলভিন জুটমিল। কিন্তু মঙ্গলবার জুটমিল কর্তৃপক্ষ কারখানায় কাজের পরিবেশ না থাকায় কারখানা বন্ধের নোটিশ ঝোলায়৷ আর এই কারখানা বন্ধের ফলে রাতারাতি কর্মহীন হয়ে পড়েন প্রায় তিন হাজারেরও বেশি মানুষ৷

আরও পড়ুন: নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে পার্লামেন্টের বাইরে গাড়ির ধাক্কায় আহত পথচারীরা

অন্যদিকে, এই জুটমিল বন্ধের ঘটনায় মালিক-পক্ষ সংবাদ মাধ্যমের সামনে মুখ খোলেনি। উত্তেজনার জেরে জুটমিলের গেটে পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে। যদিও লাঠিচার্জের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ৷