স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: কারখানা থেকে অ্যামোনিয়া গ্যাস লিক করায় অসুস্থ হয়ে পড়ল বহু শ্রমিক। এই ঘটনায় সকাল থেকে আতঙ্ক ছড়িয়েছে কারখানার অন্যান্য শ্রমিক এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে শিল্প শহর হলদিয়ার একটি রাসায়নিক কারখানায়।

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে হঠাৎ কারখানার মধ্যে থেকে তীব্র ঝাঁঝালো গন্ধ বের হতে থাকে। বিষাক্ত এই গ্যাসের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, ঘটনাস্থলে অসুস্থ হয়ে পড়ে কারখানার বেশ কিছু শ্রমিক। তাঁদের দ্রুত উদ্ধার করে পাঠানো হয় হলদিয়া মহাকুমা হাসপাতালে। বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন তাঁরা। যদিও হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে অসুস্থ শ্রমিকদের অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল। এদিকে এই ঘটনায় শিল্পাঞ্চলের স্থানীয় বাসিন্দারাও আতঙ্কে ছোটাছুটি করতে থাকে।

এদিকে কারখানা থেকে বিষাক্ত রাসায়নিক গ্যাস লিকের খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় দুর্গাচক থানার পুলিশ, এলাকার জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় পুরসভার চেয়ারম্যান এবং ইঞ্জিনিয়াররা। শুধু তাই নয়, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তীব্র ঝাঁঝালো গ্যাসে ওই এলাকায় আরও বেশকিছু মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাঁদের হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করত হয়।

পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, হলদিয়া বন্দর থেকে একটি পাইপ করে অ্যামোনিয়া গ্যাস সঞ্জনা কারখানাতে আসে। পাইপ দিয়ে অ্যমোনিয়া সরবরাহ করা হয় ওই কারখানাতে। এদিন পাইপের মাধ্যমে অ্যামোনিয়া লিক করে পুরো শিল্পাঞ্চলে গ্যাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় দ্রুততার সঙ্গে ইঞ্জিনিয়াররা পাইপের লিকেজ অংশটি চিহ্নিত করেন। এবং পাইপের মুখ আটকে গ্যাস বন্ধ করা হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে দুর্গাচক থানার পক্ষ থেকে মাইকিং করে জানিয়ে দেওয়া হয় যে গ্যাস বন্ধ করা হয়ে গিয়েছে। সাধারণের আর কোনও ভয়ের কারণ নেই জানিয়ে তাঁদের বাড়িতে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। এই বিষয়ে হলদিয়া পুরসভার কাউন্সিলর বিমল মাঝি বলেন, ”গ্যাস লিক হয়ে যাবার পরে যথাসময়ে আমরা যৌথভাবে গিয়ে গ্যাস লিকেজ বন্ধ করা হয়। যার ফলে দ্রুত গ্যাস ছড়িয়ে পড়া রোধ করা হয়। এলাকাবাসীকে যে যার বাড়িতে আবার ফিরে যাবার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক।”