স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: স্কুলের ট্যাঙ্কের জলে বিষক্রিয়া। সেই জল খেয়ে অসুস্থ দুই ছাত্রী। মালদহের বামনগোলা থানার জগদলা এলাকার একটি আবাসিক মাদ্রাসার ঘটনা। অসুস্থ দুই ছাত্রী বর্তমানে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন। ঘটনার তদন্তে নেমেছে বামনগোলা থানার পুলিশ।

২০০৫ সালে বামনগোলা এলাকায় এই আবাসিক মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়। মোট ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা এখানে ১৮১৷ এই মাদ্রাসায় একটি পরিশ্রুত পানীয় জলের ট্যাঙ্ক তৈরি করে দেয় জেলা পরিষদ৷ সেই ট্যাঙ্কের জল থেকেই চলত পানীয় জল সরবরাহ।

মঙ্গলবার সকালে সেই জল খেয়ে দুই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। জল থেকে বের হচ্ছিল তীব্র বিষের গন্ধ। অসুস্থ দুই ছাত্রী আফসানা খাতুন ও সাবিনা ইয়াসমিন বর্তমানে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন।

আরও পড়ুন : ‘স্ত্রীকে ধর্ষণ করছিল, তাই খুন করেছি’

খবর পেয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বামনগোলা থানার পুলিশ। প্রশ্ন দেখা দিয়েছে কি ভাবে এই ট্যাঙ্কের জলে বিষ মিশল৷ এই ঘটনার পিছনে কোনও চক্রান্ত কাজ করছে কীনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ কেউ বা কারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তাও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে৷

ওই মাদ্রাসার শিক্ষক জিয়াউদ্দিন আহমেদ বলেন, এই ট্যাঙ্কের জল দিয়ে ছেলেদের হস্টেল ও মেয়েদের হস্টেলে জল সরবারহ হয়। এদিন দেখা যায় বিষক্রিয়ার ফলে জল সাদা হয়ে গিয়েছে। এই জল মুখে দিয়ে দুই ছাত্রী অসুস্থও হয়ে পড়ে৷ যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের শাস্তি দরকার৷ এধরনের ঘটনার ফলে ছাত্রছাত্রীদের বড় ক্ষতি হতে পারত৷

জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌড় চন্দ্র মন্ডল বলেন, ঘটনাটি খুব দুঃখজনক৷ ইতিমধ্যে ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ প্রশাসন ও প্রশাসনিক আধিকারিকেরা ঘটনাস্থলে যান৷ তবে এর সঙ্গে যারা যুক্ত রয়েছে, তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।