স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হয়ে গিয়েছে। সেই বিলে শিলমোহরও দিয়ে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রাধানাথ কোবিন্দ। আর এই বিল নিয়ে আগুন জ্বলছে অসম, ত্রিপুরা-সহ বিস্তীর্ণ অঞ্চলে। রেশ পড়েছে বাংলাতেও। কলকাতা-সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন সংখ্যালঘু মানুষজন। পথে নেমে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন তারা। উলুবেড়িয়া, খড়দহ, ডায়মন্ড হারবার এবং মুর্শিদাবাদে স্থানীয়দের আন্দোলনের জেরে বিপর্যস্ত।

আন্দোলনে সামিল হয়েও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের আবেদন জানিয়েছেন বাংলার বিশিষ্টজনেরা। ইতিমধ্যেই মুখ খুলেছেন সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত, শিক্ষাবিদ কৃষ্ণা বসু, সাহিত্যিক আবুল বাশার, অভিনেতা কৌশিক সেন প্রমুখ। এবার CAB-র প্রতিবাদে কলম ধরলেন কবি সুবোধ সরকার।

শুক্রবার বিকেলে নিজের ফেসবুক দেওয়ালে সুবোধ পোস্ট করেন ‘আমার দেশ’ নামের একটি কবিতা। ওই কবিতায় তিনি লেখেন– “যেখানে ছিল আমার বাড়ি সেখানে আর নেই/ যেখানে ছিল আমার গ্রাম সেখানে আর নেই/ যেখানে ছিল শিউলিতলা সেখানে আর নেই/ যেখানে ছিল আজান সিঁড়ি সেখানে আর নেই।/ এখানে ছিল আমার দেশ, এখানে আর নেই/ এখানে ঘৃণা, ওদের ঘৃণা, তাদের ঘৃণা শুধু/ হাঁড়িতে ভাত ঘৃণায় ফোটে, ঘৃণায় ফাটে বুক/ চলেছি ছেলে মেয়েকে নিয়ে, পিঠে তুলেছি বাড়ি।/ যেখানে ছিল ছেঁড়া বালিশ, সেখানে ছিল সুখ/ বসুন্ধরা সইবে না গো এতটা বাড়াবাড়ি।”

প্রতিবাদই হয়ে ওঠে তাঁর কবিতার ভাষা। এই প্রথম নয়, এর আগেও নানান ঘটনার প্রতিবাদে কলম হাতে তুলে নিতে দেখা গিয়েছে কবি সুবোধ সরকারকে। মণিপুরে আর্মিদের কর্মকান্ডের নিন্দা করে তিনি ‘মণিপুরের মা’ নামের একটি তীব্র কবিতা লিখেছিলেন তিনি। যা পরবর্তীতে সারা ভারতে ছড়িয়ে পড়ে। গুজরাট হত্যার পরেও থেমে থাকেনি তাঁর কলম। এভাবেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে বারবার সরব হয়েছেন সুবোধ সরকার।