কলকাতা: ফেসবুকে তাঁকে এবং তাঁর স্ত্রীকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ফোন করেও হুমকি দেওয়া হচ্ছে ওই দম্পতিকে। এই অভিযোগ তুলে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করলেন কবি শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার কলকাতা পুলিশের সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন কবি শ্রীজাত।

ঘটনার সূত্রপাত চলতি মাসের ১৯ তারিখে। নিজের ফেসবুক ওয়ালে ‘অভিশাপ’ নামের একটি কবিতা পোস্ট করেছিলেন কবি শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই কবিতা আঘাত করছে ধর্মীয় আবেগকে৷ এই অভিযোগ তুলে রাজ্য পুলিশের সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন অর্ণব সরকার নামে এক ব্যক্তি৷ অভিযোগকারী অর্ণব মনে করেছেন, এই কবিতার মাধ্যমে ঘৃণা ছড়ানোর চেষ্টা করেছেন শ্রীজাত৷ একইসঙ্গে ধর্মীয় ভাবাবেগ ও রীতিনীতিতে আঘাত করা হয়েছে বলে ওই অভিযোগ জানানো হয়েছে৷এদিকে হিন্দু সংহতির সভাপতি তপন ঘোষের বক্তব্য , ওই কবিতাটি লেখা হয়েছে ভুল তথ্যের উপর নির্ভর করে এবং এই ভাবে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ভুল বার্তা দেওয়া হচ্ছে৷

ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতকারী বিষয়টি জানাজানি হতে খুব বেশি সময় লাগেনি। শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়ের কবিতা নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কবি শ্রীজাতকে আক্রমণ করে শুরু হয়ে যায় নানাবিধ পোস্ট। অনেকে হুমকিও দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তাঁর স্ত্রীকেও হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, ফোন করেও অনেকে হুমকি দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন অভিশাপ কবিতার শ্রষ্ঠা। এদিন লালবাজারে কলকাতা পুলিশের সদর দফতরে অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন কবি শ্রীজাত। কলকাতা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার(ক্রাইম) বিশাল গর্গের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। কবিকে সাইবার থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করার পরামর্শ দেন বিশালবাবু।

কবি শ্রীজাতের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়টি নজরে পড়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বিষয়টি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই নিয়ে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে না বলে জানিয়েছেন মমতা। এদিন বিকেলে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠানে এসে এই কথা বলেছেন তিনি।