স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বরাবর তিনি প্রতবাদী। এর আগেও SSC উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীদের অনশনমঞ্চে তাকে দেখা গিয়েছে। এবার তিনি বেতন বৃদ্ধির ন্যায্য দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষাকদের অনশনে যোগ দিলেন। তিনি কবি মন্দাক্রান্তা সেন। কয়েক দিন ধরেই বেতন বৃদ্ধির দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকরা আমরণ অনশনে বসেছেন।

দু’দিন আগেই অনশন মঞ্চে গিয়ে তাঁদের সঙ্গে দেখা করেন অধ্যাপক মীরাতুন নাহার। একটি লিখিত বিবৃতিও জনসমক্ষে আনেন মীরাতুন দেবী। এবার সেই অনশন মঞ্চে সামিল হলেন কবি মন্দাক্রান্তা সেন। এক সময় ভারত ব্যাপী অসহিষ্ণুতার জেরে তিনি সাহিত্য আকাদেমি যুব পুরস্কার ফিরিয়েছিলেন। প্রাথমিক শিক্ষকদের আমরণ অনশন মঞ্চে যোগ দিয়ে ফের তাঁর প্রতিবাদী সত্ত্বা প্রকাশ পেল। সারা বছর সরকারের সমালোচনায় সরব হতে দেখা যায় প্রতিক্রিয়াশীল এই কবিকে। চলতি বছর আমেরিকার বঙ্গ সম্মেলনে ডাক পেয়েও ভিসা পাননি তিনি। সেই ঘটনায় নিজের সোশ্যাল অয়াক্টিভিটিসকেই দায়ি করেছিলেন মন্দাক্রান্তা।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায় প্রাথমিকদের অনশন মঞ্চে যোগ দিয়ে তিনি নিজের ফেসবুক দেওয়ালে লেখেন, “আজ UUPTWA-এর অনশনে যোগ দিলাম। সকাল ৮ টা থেকে আছি। আপনারাও আসুন। বঞ্চনার শিকার শিক্ষকদের পাশে থাকুন।” অর্থাৎ শুধু নিজে নয়, অন্যান্য প্রতিক্রিয়াশীল মানুষদেরও পাশে চাইছেন তিনি। প্রাথমিক শিক্ষদের অনশন তেরো দিন পেরিয়ে যেতে চলেছে। এখনও হেলদোল নেই সরকারের।

বিশিষ্ট মহল মনে করছে, ন্যায্য দাবিতেই পথে নেমেছেন প্রথমিক শিক্ষকরা। অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় পশ্চিমবঙ্গে বেতন বৃদ্ধির হার উল্লেখযোগ্য ভাবে কম। এমন অবস্থায় আমরণ অনশনে সামিল হয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। মঙ্গলবার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে দেখা করেন মীরাতুন নাহার। অভিনেতা কৌশিক সেনও অনশন মঞ্চে গিয়ে শিক্ষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন।

কিছুদিন আগেই শিক্ষামত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন আন্দোলনকারী শিক্ষকদের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী আন্দোলনকারী সন্তুষ্ট করতে পারেননি। সমস্ত ঘটনাকেই অস্বাভাবিক মনে করছে বিশিষ্ট মহল। রাজ্য সরকার কি প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবি শেষ পর্যন্ত নেমে নেবে নাকি আন্দোলন গড়িয়ে চলবে দিনের পরে দিন, সেটাই এখন দেখার বিষয়।