নয়াদিল্লি : করোনা পরিস্থিতি ভারতে ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে। দ্বিতীয় ঢেউ-এর ধাক্কায় বেসামাল কেন্দ্র থেকে রাজ্য অর্থাৎ সারা দেশ। এই পরিস্থিতি থেকে বার হওয়ার উপায় খুঁজতে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী । কিন্তু এবারও প্রধানমন্ত্রীর এই করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে হাজির হলেন না পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে প্রধানমন্ত্রীকে অক্সিজেনের অভাব পূরণে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে ১০ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকে আবেদন জানান। প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে জানিয়েছেন, “অক্সিজেন পেতে যাতে কোনও সমস্যা না হয় তার ব্যবস্থা করবে কেন্দ্র।”

প্রধানমন্ত্রীর ডাকা গুরুত্বপূর্ণ এই ভার্চুয়াল বৈঠকে মহারাষ্ট্র, কেরল, কর্ণাটক, গুজরাত, রাজস্থান, দিল্লি, পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীরা অংশ নিয়েছেন। বৈঠক দেশের অক্সিজেন প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলির প্রতিনিধিরাও উপস্থিত হয়েছেন।

করোনা অতিমারিতে যে ১০টি রাজ্যের পরিস্থিতি সবচেয়ে খারাপ, সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে শুক্রবার আলোচনায় বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানেই অক্সিজেনের অভাব নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে সরব হন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল।

লাইভ সম্প্রচারিত হওয়া মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর এই বৈঠকে অরবিন্দ কেজরীবাল বলেছেন, ‘”দিল্লিতে অক্সিজেনের অভাব সমস্যার সৃষ্টি করেছে । লোকে শুধু মাত্র অক্সিজেনের অভাবে মারা যাচ্ছেন। আপনি দ্রুত পদক্ষেপ করুন। না হলে দিল্লির পরিস্থিতি বেদনাদায়ক হয়ে উঠবে।” পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশা থেকে বিমানে অক্সিজেন আনার ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংকট কাটিয়ে ওঠার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে পথ দেখানোর অনুরোধ জ্জানান। পাশাপাশি দিল্লির জন্য আসা অক্সিজেন অন্য রাজ্য আটকে দিলে কার কাছে তিনি অভিযোগ জানাবেন, তা-ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চান অরবিন্দ কেজরীবাল।

গোটা দেশ জুড়ে অক্সিজেনের অভাবে কোভিড রোগীদের মৃত্যু হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে। একটি অংশের অভিযোগ, দিল্লিতেই গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জন মারা গিয়েছেন শুধু অক্সিজেনের অভাবে। এক দিনে ২৬ হাজারের বেশি আক্রান্ত হয়েছেন দিল্লিতে। দেশের আক্রান্তও শুক্রবার ৩ লক্ষ ৩২ হাজারে পৌঁছে গিয়েছে। সেই পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের অভাবের সমস্যা মেটাতে মোদীকে পদক্ষেপ করার আর্জি জানালেন কেজরীবাল।

তবে এই বৈঠকের আগে দেশের করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করার জন্য কেন্দ্রের বিভিন্ন মন্ত্রকের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.