আমেথি: নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে রাহুল গান্ধীর প্রচার অব্যাহত। সোমবার নিজের লোকসভা কেন্দ্র আমেথিতে দাঁড়িয়ে রাহুল ফের একবার একহাত নিলেন নরেন্দ্র মোদীকে। সেখানে তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী একের পর এক বিদেশ ভ্রমণ করছেন। তবে তিনি একজনও আত্মঘাতী কৃষকের বাড়িতে যাননি। রাহুলের এই মোদী বিরোধিতা নতুন কিছু নয়। লোকসভায় এর আগেও মোদীর বিদেশ ভ্রমণ নিয়ে সরব হয়েছিলেন তিনি। সেবার রাহুল বলেন, “আমাদের প্রধানমন্ত্রী বিদেশ ভ্রমণে ব্যস্ত। তাঁকে বলছি একবার গিয়ে কোনও কৃষকের বাড়িতে দাঁড়ান। আপনার অর্ধেক জানা সেখানেই সম্পন্ন হবে।” সেবার অবশ্য চুপ থাকেননি বিজেপি বিধায়কেরা। রাহুলের বিরুদ্ধে লোকসভাকে কার্যত রণক্ষেত্রে পরিণত করেছিলেন তারা। বিজেপি বিধায়কদের পর গত শনিবার রাহুল গান্ধী ইস্যুতে সরব হয়েছেন স্বয়ং নরেন্দ্র মোদী। চিন থেকে তিনি পক্ষান্তরে রাহুলকে ঠুকে বলেন, “আমার বিদেশ সফর নিয়ে অনেকেই অনেক কথা বলছেন। আমি বলছি অতিরিক্ত কাজ করা যদি অন্যায় হয় তাহলে আমার দেশের ১২০ কোটি মানুষের জন্য বারংবার অন্যায় করতে রাজি আছি।”

অন্যদিকে আমেথিতে ফুডপার্ক বাতিল ইস্যুতে সরব হয়েছেন রাহুল। কংগ্রেসের সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী ওই ফুড পার্ক বাতিল করার বিরুদ্ধে বিজেপিকে একহাত নিয়ে লোকসভায় বলেন, “ফুডপার্ক বাতিল করে মোদীর সরকার আরও একবার প্রমাণ করেছে যে দেশের বিরুদ্ধে ও সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে সরকার চালাচ্ছে তারা।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।