নয়াদিল্লি: নরেন্দ্র মোদীর মুকুটে এল নতুন পালক। সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ রুখতে এবং তার বিরুদ্ধে কড়া ব্যাবস্থা নিতে বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। মূলত দুই দেশের প্রধানের মধ্যে আলোচনা হবে সামরিক বাহিনী, সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ বন্ধ করা, পারমানবিক শক্তির ব্যবহার এবং বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে৷

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এদিন সন্ধে নাগাদ পৌঁছবেন প্যারিসে৷ বিমানবন্দের তাঁকে অভিবাদন জানাতে উপস্থিত থাকবেন স্বয়ং ফরাসি প্রেসিডেন্ট৷ বিমানবন্দর থেকে দুই রাষ্ট্রপ্রধান সরাসরি চলে যাবেন প্যারিস থেকে ৬০ কিমি দূরে চাতেউ দ্য চান্তেলি-তে৷ এখানে বৈঠকে বসবেন ভারত ও ফ্রান্সের রাষ্ট্রপ্রধান৷ বৈঠকের পর সেখানেই ফরাসি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নৈশভোজ সারবেন মোদী।

আরও পড়ুন : ভারতে চিনের হানা, হ্যাকার দিয়ে চুরি ৬৮ লক্ষ নথি

ম্যাক্রনের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকের পাশাপাশি ফ্রান্সে বসবাসকারী ভারতীয়দের সঙ্গে দেখা করবেন মোদী৷ এছাড়াও নিদ আইজেলে এয়ার ইন্ডিয়ার দুর্ঘটনা স্থলের স্মৃতি সৌধেও যাবেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। বিদেশমন্ত্রকের বার্তা অনুযায়ী মোদীর ফ্রান্স সফর ও জি-৭ সামিটের আমন্ত্রণ গ্রহণের মাধ্যমে দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও জানা গিয়েছে, এই সফরে দুই দেশের প্রধানের মধ্যে বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ের পাশাপাশি পরিবেশের পরিবর্তন এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়েও আলোচনা হবে। তাছাড়াও পারমানবিক শক্তি এবং শান্তি চুক্তি, সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে পাকিস্তানের অর্থ সাহায্যের বিষয়টিও আলোচনায় উঠতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷

২০০১ সালের পর থেকে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক সাহায্যের পরিমান ক্রমেই বেড়ে চলেছে৷ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ‘আঁতুরঘর’পাকিস্তান নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হতে পারে মোদী ও ম্যাক্রনের মধ্যে৷ সম্প্রতি জম্ম-কাশ্মীর থেকে মোদী সরকারে আর্টিকল ৩৭০ বিলোপ নিয়ে আগেই মতামত জানিয়েছিল ফ্রান্স৷ ফরাসি রাষ্ট্রপতি ম্যাক্রন জানিয়েছিলেন, শুধু ভারতের সঙ্গী নয় বরং প্রয়োজনে বন্ধুও উঠতে পারে তারা৷

জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ বিলোপ নিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরও নিবিড় হয়েছে বলে মনে করছে ওয়াকিবহলমহল৷ সুতরাং ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী এই ফ্রান্স সফর অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেও মনে করা হচ্ছে৷ ফ্রান্স থেকে নরেন্দ্র মোদী বাহরীন এবং আরব সফরে যাবেন৷ দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে জি-৭ সামিটে যোগ দিতে ফের প্যারিসে ফিরবেন মোদী৷