নয়াদিল্লি: ক্লিনচিট পেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ মিশন শক্তি নিয়ে তাঁর ভাষণ নির্বাচনী বিধি ভঙ্গের আওতায় পড়ছে না বলে জানিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন৷ কমিশনের এই সিদ্ধান্তে বেশ কিছুটা স্বস্তিতে বিজেপি৷

কমিশন সূত্রে খবর ওই ভাষণে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করার মত কোনও বক্তব্য ছিল না৷ উল্লেখ্য অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইল মিশন শক্তি সফল ভাবে উৎক্ষেপণ করার পর জাতির উদ্দ্যেশ্যে ভাষণ দেন মোদী৷ সেই ভাষণ নিয়েই শুরু হয় বিতর্ক৷ বলা হয় নির্বাচনের আগে উদ্দ্যেশ্যপ্রণোদিত ভাবে মিশন শক্তি সামনে আনা হয়েছে৷ এর প্রভাব ভোট বাক্সে পড়তে পারে৷

আরও পড়ুন : পাকিস্তান মৃত জঙ্গিদের সংখ্যা গুণছে আর বিরোধীরা প্রমাণ চাইছে: মোদী

তবে সেই সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ জানিয়েছে এই অভিযোগের কোনও সারবত্তা নেই৷ আর এতে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ হয়নি৷ কমিশন সূত্রে খবর, বুধবার জাতির উদ্দ্যেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাষণ নিয়ে রিপোর্ট এসেছে৷ সেখানে অভিযোগ জানানো হয়েছে৷ এই ভাষণ নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে৷ কমিশন এই ইস্যুতে একটি কমিটি গঠন করে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবে৷ তারপরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷

উল্লেখ্য মোদী এই ভাষণ দেওয়ার পরেই সিপিএমের পক্ষ থেকে কড়া ব্যবস্থার দাবি করে একটি লিখিত অভিযোগ কমিশনে পাঠানো হয়৷ সেখানে লোকসভা ভোটের আগে মোদীর ভাষণকে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গের সঙ্গে তুলনা করা হয়৷ চিঠিতে বলা হয়, চারিদিকে যখন নির্বাচনের জন্য রাজনৈতিক প্রচার চলছে, তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই ভাষণ বিজেপির প্রচারেরই সামিল৷ মোদী নিজেই যখন প্রার্থী, তখন এই ধরণের ভাষণ নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করছে৷

আরও পড়ুন : বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে আঙুল ভেঙে দেব: বিজেপি প্রার্থী

তবে কমিশন জানিয়েছিল, দেশের সার্বিক নিরাপত্তা ও সুরক্ষার খাতিরে এই ভাষণ হলে তা নির্বাচনী বিধিভঙ্গের আওতায় নাও পড়তে পারে৷ সেক্ষেত্রে মোদীর ভাষণের প্রতিটি অংশ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়ে দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন৷