ফাইল ছবি

জয়পুর: দীপাবলিতে পড়শি চিন ও পাকিস্তানকে হঁশিয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। শনিবার রাজস্থানের জয়সলমীরে সেনাবাহিনীর সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান প্রধানমন্ত্রী। এদিন জয়সলমীরের লঙ্গওয়ালায় সেনার ট্যাঙ্কে সওয়ার ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। চিনের আচরণের সমালোচনা করে মোদীর তোপ, ‘‘নিজের সীমানা ছাড়িয়ে সম্প্রসারণ আসলে বিকৃত মানসিকতার উদাহরণ।’’

দীপাবলির দিনে ফের একবার চিনকে হুঁশিয়ারি দিলেন প্রধানমন্ত্রী। লাদাখে ভারতীয় ভূখণ্ডে নজর চিনের। ভারত কখনই এই ধরনের আগ্রাসন মেনে নেবে না বলে ফের এদিন স্পষ্ট জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

তাঁর কথায়, ‘‘দেশের সীমান্তে যারাই আগ্রাসন দেখানেরা চেষ্টা করবে ভারত তাদের মোক্ষম জবাব দিতে প্রস্তুত।’’ শনিবার সকালে জয়সলমীরে ভারতীয় সীমান্তে মোতায়েন থাকা জওয়ানদের সঙ্গে দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ প্রত্যেককে দীপাবলির শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এই প্রথম ভারতের কোনও প্রধানমন্ত্রী দেশের সীমান্তে গিয়ে ট্যাঙ্কে চেপেছেন। পড়শি দেশের আগ্রাসন নিয়ে এদিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ছিলেন নরেন্দ্র মোদী। চিনের প্রতি তাঁর হুঙ্কার, ‘‘আমাদের শক্তি পরীক্ষার চেষ্টা হলে মুখের উপর জবাব পাবে সেই দেশ।

শক্রদের উপযুক্ত জবাব দিতে তৈরি সেনাবাহিনী। দেশের স্বার্থ নিয়ে কোন ধরনের আপোস করবে না ভারত।’’ এর আগে দীপাবলি উপলক্ষে দেশের সেনা-জওয়ানদের উদ্দীপ্ত করতে টুইটও করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি লিখেছেন, “দিওয়ালিতে #Salute2Soldiers। যাঁরা সীমানায় থেকে আমাদের রক্ষা করছেন তাঁদের জন্য একটি করে দীপ জ্বালাই।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।