নয়াদিল্লি: বেলাগাম সংক্রমণে ত্রস্ত দেশ। একাধিক রাজ্যে করোনার সংক্রমণ কমার লক্ষ্মণ নেই। দেশের বেশ কয়েকটি রাজ্যে বেড়ে চলা সংক্রমণ বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। যা নিয়ে ঘোর উদ্বেগে কেন্দ্রীয় সরকার। পরিস্থিতি পর্যালোচনায় আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর দেশের ৭ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

পড়ুন আরও- ‘পোশাক খোলার চেষ্টা করে অনুরাগ’, পায়েলের অভিযোগে ব্যবস্থা নিতে চায় মহিলা কমিশন

মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক, তামিলনাড়ুর মতো রাজ্যগুলিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম দশা রাজ্য সরকারগুলির। করোনা মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় একাধিক ব্যবস্থা নিলেও সংক্রমণে লাগাম পরানো যাচ্ছে না।

পড়ুন আরও- ৬ আল কায়দা জঙ্গি গ্রেফতার হওয়ার পরই রাজ্য সরকারকে কড়া আক্রমণ দিলীপ ঘোষের

এই পরিস্থিতিতে আরও কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে তা নিয়েই আলোচনা করতে চান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগামী বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ৭ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করবেন নরেন্দ্র মোদী। ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে সেই বৈঠক হবে।

গত ১১ অগাস্টও করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেবার ১০টি রাজ্যকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন মোদী।

পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, পাঞ্জাব, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, বিহার, গুজরাত, তেলেঙ্গানা ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন সেই বৈঠকে। করোনা মোকাবিলায় আরও কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে তা নিয়ে আলোচনা হয়েছিল সেই বৈঠকে।

গোটা দেশেই করোনার সংক্রমণের বিদ্যুৎ গতি। প্রতিদিন লাফিয়ে-লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু। দৈনিক সংক্রমণের হার ১ লক্ষের দোরগোড়ায় পৌঁছেছে।

ফাইল ছবি

রবিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে ৯২,৬০৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১৩৩৩ জনের। দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৪ লক্ষ ৫ হাজার ২৫২। যদিও ৪৩ লক্ষেরও বেশি মানুষ ইতিমধ্যেই করোনামুক্ত হয়েছেন। দেশজুড়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৬,৭৯৬।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।