নয়াদিল্লি: লাদাখ সীমান্তে অস্থিরতা বজায় রয়েছে। ইতিমধ্যেই প্রচুর সেনা মোতায়েন করছে চিনা বাহিনী, আনা হয়েছে ভারী অস্ত্রও। ভারতও অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে। এমন পরিস্থিতিতে, আলোচনা সারলেন মোদী ও ট্রাম্প।

জানা গিয়েছে, সীমান্তে চিনের সঙ্গে উত্তেজনাময় পরিবেশ ও পুলিশ হেফাজতে এক কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যুর কারণে আমেরিকায় তৈরি হওয়া অশান্তি এই দুই ইস্যুতে কথা হয়েছে দুই নেতার। প্রায় ২৫ মিনিট ধরে ফোন কথা বলেন দুজনে। সরকারি একটি বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আগামী জি ৭ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবছর জি ৭ সামিট অনুষ্ঠিত হচ্ছে আমেরিকায়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চাইছেন, ভারত ও অন্যন্য গুরুত্বপূর্ণ দেশগুলি এই সামিটে অংশ নিক।

চিনের আগ্রাসন সম্পর্কে ট্রাম্প কি জানিয়েছেন, তা এখনও কিছু জানা যায়নি। তবে সোমবারই আমেরিকার তরফে বলা হয়, নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর চিনের আগ্রাসন নিয়ে “খুবই উদ্বেগে” তারা।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানান, বেশ ভাল সংখ্যক চিনের সেনা এগিয়ে এসেছে পূর্ব লাদাখের দিকে। যা চিন্তার বিষয় হলেও ভারতীয় সেনারা তৈরি রয়েছে সবধরণের পরিস্থিতির জন্য।

লাদাখ তো বটেই এমনকী সিকিমেও চিন সীমান্ত বরাবর বাড়তি সেনা মোতায়েন করেছে ভারত। ইন্দো-চিন সীমান্তে গত কয়েকদিন ধরেই টানটান উত্তেজনা রয়েছে। রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, দুই দেশের উচ্চপদস্থ সেনা আধিকারিকদের মধ্যে ৬ই জুন বৈঠক করা হবে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV