নয়াদিল্লি: পাকিস্তানের আকাশপথ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জন্য খুলে দেওয়ার ছাড়পত্র দিয়েছে ইমরান খানের সরকার৷ এখন খবরই প্রথমে শোনা গিয়েছিল৷ কিন্তু বুধবার ভারতের বিদেশমন্ত্রক জানিয়ে দেয়, পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করবেন না মোদী৷ যার অর্থ পাকিস্তানের আকাশপথ হয়ে কিরঘিজস্থান যাওয়া হবে না প্রধানমন্ত্রী৷

আগামী ১৩ ও ১৪ জুন কিরঘিজস্থানের বিশকেকে সাংহাই কোঅপারেশন অগানাইজেশন সংক্ষেপে এসসিও’র সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা৷ সেখানে যোগ দেবেন নরেন্দ্র মোদী৷ কিরঘিজস্থান যেতে হলে পাকিস্তানের আকাশপথ হয়ে যাওয়া সহজ৷ কিন্তু বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের পর পাকিস্তান তাদের আকাশপথ ভারতের ব্যবহারের জন্য পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে৷

পাকিস্তান থেকে ভারতে আসার ১১টি ‘প্রবেশপথ’ আছে৷ এর মধ্যে সম্প্রতি দু’টি পথ ভারতের জন্য খুলে দিয়েছে পাকিস্তান৷ কিন্তু ওই দুটি রুট ধরে কিরঘিজস্থান যাওয়া যাবে না৷ তাই এসওসি সম্মেলনের জন্য অপর একটি আকাশপথ খুলে দেওয়ার অনুরোধ পাক সরকারকে করে ভারতের বিদেশমন্ত্রক৷ তাতে ইমরান খানের সরকার রাজিও হয়৷ কিন্তু নরেন্দ্র মোদী জানিয়ে দেন, তিনি পাক আকাশপথ ব্যবহার করবেন না৷ ফলে কিরঘিজস্থানের বিশকিক যাওয়ার বিকল্প রুটের সন্ধান শুরু হয়৷ বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, ওমান, ইরান ও সেন্ট্রাল এশিয়া হয়ে মোদীর বিমান যাবে বিশকিক৷

উল্লেখ্য ২১ শে মে পাকিস্তান ভারতের তৎকালীন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের এসসিও সামিটের জন্য নিজেদের আকাশপথ খুলে দিয়েছিল৷ পাকিস্তানের ওপর দিয়েই সরাসরি কিরঘিজস্থানের উদ্দ্যেশ্যে উড়ে গিয়েছিল সুষমা স্বরাজের বিমান৷ দক্ষিণ পাকিস্তানের ওপর দিয়ে কিরঘিজস্তানের উদ্দ্যেশ্যে যাওয়া বিমানের রুটটি গুরুত্বপূর্ণ ভারতের কাছে৷ তাই এই আবেদন করেছিল ভারত৷

এদিকে এর আগে জানানো হয়েছিল ভারতের জন্য পাকিস্তানের আকাশপথ বন্ধের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে৷ ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে জানানো হয় ১৪ই জুন পর্যন্ত পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করতে পারবে না ভারত৷ ১৬ই মে জানানো হয়েছিল ৩০শে মে পর্যন্ত আকাশপথ বন্ধ থাকার কথা৷ কিন্তু সেই সময়সীমা পরে বাড়ানো হয়৷