নয়াদিল্লি: আগামী ২১ অগাস্ট দীর্ঘ অপেক্ষার পর ‘ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্ট ব্যাংক’-এর উদ্বোধন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রত্যেক জেলায় অন্তত একটি করে ব্রাঞ্চ থাকবে এই ব্যাংকের। প্রত্যন্ত অঞ্চলে অর্থনৈতিক পরিষেবা দিতেই এই ব্যাংক তৈরি করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেছেন এক আধিকারিক।

ইতিমধ্যেই দুটি ব্রাঞ্চ কার্যকর রয়েছে। আরও ৬৪৮টি ব্রাঞ্চ খোলা হবে দেশ জুড়ে। ৩,২৫০টি অ্যাকসেস পয়েন্ট নিয়ে কাজ শুরু হবে। এছাড়াও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ব্যাংকিং পরিষেবা দেওয়ার দায়িত্বে রাখা হয়েছে প্রচুর পোস্টম্যানকে। দেশে এখন পোস্ট অফিসে মোট সেভিংস অ্যাকাউন্ট রয়েছে ১৭ কোটি। এসব অ্যাকাউন্টই এবার আইপিপিবি-র সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে যাবে।

এই পেমেন্টস ব্যাংক হল নতুন মডেলের ব্যাংক। রিজার্ভ ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী এই ব্যাংকে সর্বোচ্চ ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমা রাখতে পারবেন গ্রাহকরা। এই ব্যাংক থেকে কোনও ঋণ বা ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হবে না। তবে সেভিংস ও কারেন্ট অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে, ডেবিট কার্ড পাওয়া যাবে। এইসব ব্যাংকে থাকবে নেট ব্যাংকিং-এর সুবিধাও। মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমেও হবে লেনদেন।

পেমেন্টস ব্যাংকের শর্ত অনুযায়ী গ্রাহক কোনও ঋণ নিতে পারবেন না। ন্যূনতম ব্যালেন্স রাখার কোনও বাধ্যবাধকতাও থাকবে না। ফলে ন্যূনতম ব্যালেন্স না রাখতে পারলে জরিমানা বাবদ কোনও টাকা কাটা যাওয়ার ভয় নেই। গ্রাহকরা খুলতে পারবেন জিরো ব্যালান্সের অ্যাকাউন্ট।

গোটা দেশে ১.৫৫ লক্ষ ডাকঘরকে ইন্ডিয়া পোস্ট পেমেন্টস ব্যাংকের সঙ্গে যোগ করা হবে৷ নয়া ব্যবস্থায় পোস্ট অফিসের সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে একজন গ্রাহক অন্য যে কোনও ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন৷