নয়াদিল্লি: শনিবারই স্বপ্ন সত্যি করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সীমান্তের কাছে ৩৩০ মেগাওয়াটের কৃষ্ণগঙ্গা হাইড্রো পাওয়ার প্রজেক্ট দেশবাসীকে উপহার দিচ্ছেন তিনি। পাকিস্তানের মুখের উপর জবাব দিয়ে গুরেজে লাইন অফ কন্ট্রোলের কাছে তৈরি হয়েছে এই প্রজেক্ট।

২৭২০ কোটি টাকায় তৈরি হয়েছে এই প্রজেক্ট। ২০০৭-এ শুরু হয়েছিল কাজ। দুটি উপত্যকা জুড়ে ৩৭৯ একর জমিতে এই প্রজেক্ট হয়েছে।

এই প্রজেক্টে একই সঙ্গে তৈরি হয়েছে বাঁধ, টানেল ও পাওয়ার হাউস। এর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল ২৩.২৪ কিলোমিটার লম্বা টানেল। দুটি ভিন্ন পদ্ধতিতে তৈরি হয়েছে এই টানেল। গুরেজের দিকে ৮.১৪ কিলোমিটার তৈরি হয়েছে ড্রিল ও ব্লাস্ট পদ্ধতিতে। আর বান্দপোরার দিকে ১৫.১ কিলোমিটার তৈরি হয়েছে টানেল বোরিং মেশিন দিয়ে।

মুম্বই থেকে উপকরণ নিয়ে যাওয়াটাই ছিল সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ। তিনতি ভাগে ভাগ করে আনা হয়েছে জিনিসপত্র।

এই প্রজেক্টে একাধিকবার বাধা দিতে চেয়েছিল পাকিস্তান। সিন্ধু চুক্তি লঙ্ঘন করা হচ্ছে বলে হগ’স পার্মানেন্ট কোর্টে আর্জিও জানিয়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু সেই আবেদন কারিজ হয়ে যায়। পরে ২০১১-তে ভারতকে নির্মাণ বন্ধ করতে বলা হয়। যদিও বাঁধ তৈরির কাজ বন্ধ হলেও টানেল তৈরির কাজ জারি রেখেছিল ভারত। ২০১৩-তে আবার কাজ শুরু করার অনুমতি পায় ভারত।